চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

নন্দেশ্বরের ঐতিহ্যপূর্ণ গাজন উৎসব ঘিরে মানুষের ঢল


 

নন্দেশ্বরের ঐতিহ্যপূর্ণ গাজন উৎসব ঘিরে মানুষের ঢল




Rahul Roy
Sangbad Prabhati, 11 April 2024

রাহুল রায়, কাটোয়া : বাঙালীর বারো মাসে তেরো পার্বণ। চৈত্র মাসের শেষ দিকে বাংলার বিভিন্ন জায়গায় শুরু হয়েছে শিবিরের গাজন উৎসব। পূর্ব বর্ধমান জেলার কাটোয়া ২ ব্লকের গাজন উৎসবগুলির মধ্যে অন্যতম শ্রীবাটী গ্ৰাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত নন্দীগ্রামে নন্দেশ্বরের গাজন উৎসব। কাটোয়া ২ ব্লকের বিভিন্ন জায়গায় গাজন উৎসব হলেও নন্দেশ্বরের গাজন উৎসব ঐতিহ্যপূর্ণ। বহু বছরের পুরনো নন্দেশ্বরের গাজন উৎসব। এইবার সন্ন্যাসী হয়েছে ৬১ জন। ৯ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে বাবা নন্দেশ্বরের কাছে সন্ন্যাস গ্রহণ। এই সন্ন্যাসীদের দেখভাল করেন তাকে মূলে বলা হয়। সোমনাথ রেজ হল মূলসন্ন্যাসী। বুধবার সন্ন্যাসীরা উত্তরীয় নেয়। রাতে নন্দেশ্বর মন্দির প্রাঙ্গণে বোলান গানের আয়োজন করা হয়। গ্রামের যুবকদের সহযোগিতায় একটি দল গঠন করা হয়। এই দলে ১৩ জন সদস্য রয়েছে। একজন ওস্তাদ দলের নেতৃত্ব দেয়। কিছু ছেলে মেয়ে সেজে গান-নাচ করে। বোলান গান দেখতে বহু মানুষ ভিড় জমিয়েছিল মন্দির প্রাঙ্গণে। 

বৃহস্পতিবার সন্ন্যাসীরা গ্রামের নতুন পুকুরে স্নান করে ভট্টাচার্য্য বাড়ি থেকে শিব ঠাকুর-কে নিয়ে আসা হয় নন্দেশ্বর মন্দিরে। এইদিন সন্ন্যাসীরা ফল করে ঢাকের বাজনায় নাচতে নাচতে শিব ঠাকুর মাথায় নিয়ে গ্রাম পরিক্রমা করতে বের হয়। শিব ঠাকুরের গ্রাম পরিক্রমা দেখতে গ্রামের মোড়ে মোড়ে বহু মানুষ ভিড় জমিয়েছিল।

 মুলগ্রাম, কুরচিগ্রাম, পোস্টগ্রাম, শ্রীবাটীগ্রামে মানুষদের বাড়ি ঘুরে সন্ধ্যায় নন্দীগ্রামে ফিরে আসার রেওয়াজ রয়েছে। আগামীকাল নন্দেশ্বর মন্দিরে নীলের পুজো অনুষ্ঠিত হবে। নীলের পুজোয় শিবির বিয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সন্ন্যাসীরা। গ্ৰামে চরক মেলার আয়োজন করা হয়। এই গাজনে উৎসবে আনন্দে মেতে উঠেছে গ্রামের মানুষেরা।