চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

ABACUS ফান এ্যান্ড ফ্রোলিকস এর বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান


 

ABACUS

ফান এ্যান্ড ফ্রোলিকস এর বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান 




Sangbad Prabhati, 4 March 2024

ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : মাইন্ড মন্ত্র অ্যাবাকাস এখন খুবই পরিচিত নাম। খেলার ছলে অঙ্ক শেখা শুধু নয়, ব্রেন ডেভলপের ক্ষেত্রেও অ্যাবাকাসের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এমনটাই দাবি করেন মাইন্ড মন্ত্র বিজনেস এক্সিকিউটিভ শৈবাল সেনশর্মা। শহর বর্ধমানে এইমুহুর্তে তাদের তিনটি সেন্টার রয়েছে। এরমধ্যে শাঁখারীপুকুর এলাকায় ফান এ্যান্ড ফ্রোলিকস সেন্টার এর বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান আয়োজিত হলো বর্ধমানে গুডশেড রোড জাগরি হলে। 

এই অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শৈবাল সেনশর্মা বলেন, অ্যাবাকাস মানে শুধু অঙ্ক শেখা নয়। এর মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীদের আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পায়, বুদ্ধি বিচক্ষণতা বৃদ্ধি পায়। ছাত্র-ছাত্রীদের কল্পনাশক্তি অনেকটাই বেড়ে যায়। সবথেকে বড় কথা, ক্যালকুলেটর যত দ্রুত গননা করে উত্তর দিতে পারে তার থেকেও দ্রুততার সঙ্গে অ্যাবাকাস প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীরা উত্তর দিতে সক্ষম। তাই গোটা ভারতবর্ষেই ক্রমশ অ্যাবাকাসের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। 

ফান এ্যান্ড ফ্রোলিকস সেন্টার এর এদিনের অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাইন্ড মন্ত্র বিজনেস এক্সিকিউটিভ দেবাশীষ ধর। ছিলেন সেন্টার হেড সুশান রায়, শিক্ষিকা শম্পা গুহ। মাইন্ড মন্ত্র অ্যাবাকাস আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় স্থান অধিকারীদের এদিন পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানে ছাত্র ছাত্রীদের উপস্থাপনা দেখে তাদের অভিভাবকরা সহ উপস্থিত সকলেই অবাক হয়ে যান। 

ফান এ্যান্ড ফ্রোলিকস সেন্টার হেড সুশান রায় জানান, বর্তমানে তাদের সেন্টারে প্রায় ১০০ জন ছাত্র ছাত্রী রয়েছে। অ্যাবাকাস শিক্ষা ছাড়াও সাংস্কৃতিক চর্চার মাধ্যমে সুস্থ সুন্দর মন গড়ে তোলার বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়। অ্যাবাকাস শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের অঙ্কের ভীতি অনেকটাই কেটে যায়। 

এছাড়া ছাত্র ছাত্রীরা জোনাল, রাজ্য ও জাতীয়স্তরে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণের মাধ্যমে নিজেদের বিচক্ষণতা বাড়িয়ে তুলতে সক্ষম হয়। অনুষ্ঠানে সেন্টারের ছাত্রীরা সুন্দর নৃত্য পরিবেশন করে।