চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

মুখ্যমন্ত্রী কে শুভেচ্ছা জানাতে মিছিলে মানুষের ঢল


 

মুখ্যমন্ত্রী কে শুভেচ্ছা জানাতে মিছিলে মানুষের ঢল




Atanu Hazra
Sangbad Prabhati, 4 February 2024

অতনু হাজরা, জামালপুর : গত কালই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এক বিরাট ঘোষণা করেছেন। রাজ্যের বঞ্চিত ২১ লক্ষ মানুষের ১০০ দিনের কাজের টাকা অন্যায় ভাবে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার আটকে রেখেছে সেই টাকা ২১ ফেব্রুয়ারি রাজ্য সরকার মিটিয়ে দেবে অর্থাৎ তাঁদের এ্যাকাউন্টে দিয়ে দেবেন। কেন্দ্রের এই যে বঞ্চনা তাতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বা সমস্যায় পড়ছেন এই গরীব প্রান্তিক খেটে খাওয়া মানুষগুলি। সেই মানুষগুলির হকের টাকা যা কেন্দ্রের দেওয়ার কথা তা অন্যায় ভাবে আটকে রেখেছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। এর বিরুদ্ধে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জী প্রতিবাদ করেছেন। দিল্লিতে ও কলকাতায় রাজভবনের সামনে ধর্নায় বসেছেন এই প্রান্তিক মানুষগুলোর অধিকার ফিরিয়ে দিতে। কোনও রকম সহযোগিতা করেনি কেন্দ্রের সরকার। শেষ পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় সিদ্ধান্ত নিলেন সেই টাকা তিনি অর্থাৎ রাজ্য সরকার মিটিয়ে দেবেন। এই ঐতিহাসিক ঘোষণার মাধ্যমে তিনি সাধারণ মানুষের এই অধিকার রক্ষা করলেন। তাঁর এই সিদ্ধান্ত নেওয়ায় তাঁকে অর্থাৎ রাজ্য সরকারকে শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানাতে দলীয় নির্দেশে সারা রাজ্য জুড়ে চলছে শুভেচ্ছা মিছিল। 

পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরে জামালপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে একটি শুভেচ্ছা মিছিল বের করা হয়। হালারা মোড় থেকে জামালপুর বাজার হয়ে বাসস্ট্যান্ডে মিছিলটি শেষ হয়। প্রায় ১০ হাজার তৃণমূল কর্মী সমর্থক ও সাধারণ মানুষ যোগ দেন এই মিছিলে। মিছিলে সামনে দাঁড়িয়ে নেতৃত্ব দেন তৃণমূল কংগ্রেসের জামালপুর ব্লক সভাপতি মেহেমুদ খান, বিধায়ক অলক কুমার মাঝি, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি পূর্ণিমা মালিক, সহ সভাপতি ভূতনাথ মালিক, শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি তাবারক আলী মন্ডল, জয় হিন্দ বাহিনীর সভাপতি সাহাবুদ্দিন মন্ডল, ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিট্টু মল্লিক, সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি ওয়াসিম সরকার, এস সি সেলের সভাপতি উত্তম হাজারী, এস টি সেলের নেতা তারক টুডু, সাহাবুদ্দিন শেখ সহ সমস্ত অঞ্চল নেতৃত্ব, প্রধান, উপ প্রধানরা। 

মিছিল থেকে মুখ্যমন্ত্রীর নামে জয়ধ্বনি দেওয়া হয়। বিধায়ক অলক কুমার মাঝি বলেন সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের অধিকার রক্ষায় এক বড় সিদ্ধান্ত নিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। তিনি তাঁর কাজের মধ্যে দিয়ে বার বার প্রমাণ করে দেন যে এই সরকার সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের পাশে সর্বদা দাঁড়ায়। যেখানে এই টাকা কেন্দ্র অন্যায় ভাবে আটকে রেখেছে সেখানে নিজের দায়িত্বে সেই টাকা রাজ্য সরকার মিটিয়ে দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাঁর এই সিদ্ধান্তের ফলে প্রায় ২১ লক্ষ মানুষ উপকৃত হবেন। তিনি মুখ্যমন্ত্রী কে তাঁর বিধানসভার এই খেটে খাওয়া মানুষ গুলোর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। 

ব্লক সভাপতি মেহেমুদ খান বলেন এক ঐতিহাসিক ঘোষণা করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এই সরকার সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের স্বার্থ রক্ষায় সর্বদাই তাদের পাশে থাকে সেটা আবার প্রমাণ হয়ে গেলো। গরীব, অসহায় খেটে খাওয়া মানুষ গুলোর মুখে হাসি ফোটালেন তিনি। অল্প সময়ের মধ্যে আয়োজন করা এই মিছিলে এই ১০ হাজার মানুষের উপস্থিতি বুঝিয়ে দিল সাধারণ মানুষের সমর্থন কাদের প্রতি রয়েছে। এই ২১ লক্ষ মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে তিনি প্রণাম, শুভেচ্ছা ,অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানান। শুভেচ্ছা মিছিলে মানুষের ঢল লোকসভা ভোটে তৃণমূলকে যথেষ্ট স্বস্তি দেবে বলে মনে করা হচ্ছে।