চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

সামনেই লোকসভা ভোট, পুরনো নেতা ও কর্মীদের উজ্জীবিত করতে যুব নেতার অভিনব উদ্যোগ


 

সামনেই লোকসভা ভোট, পুরনো নেতা ও কর্মীদের উজ্জীবিত করতে যুব নেতার অভিনব উদ্যোগ 




Atanu Hazra
Sangbad Prabhati, 21 January 2024

অতনু হাজরা, জামালপুর : বরাবরই একটু অন্যরকম ভাবনায় কাজ করতে পছন্দ করেন জামালপুর ব্লকে তৃণমূলের তরুণ নেতা তথা জামালপুর ১ পঞ্চায়েতের উপ প্রধান সাহাবুদ্দিন মন্ডল। সামনেই লোকসভা ভোট। তাই পুরনো দিনের নেতা ও কর্মীদের সঙ্গে জামালপুর ১ অঞ্চলের সমস্ত বুথের বেশ কয়েকজন উল্লেখযোগ্য কর্মীদের নিয়ে রবিবার জামালপুরে দামোদর নদের তীরে একটি শীতকালীন বনভোজনের আয়োজন করেন। সকালের টিফিনে মুড়ি, আলুর দম, বোদে ও ডিমসেদ্ধ দিয়ে শুরু। দুপুরে লাঞ্চ, সেখানেও এলাহি আয়োজন। 

এরই সাথে বিকালে ছিল মুখরোচক খাবার। চা, কফি তো থাকছেই। এরই সঙ্গে মনোরঞ্জনের ব্যবস্থাও করেছেন যুব নেতা পাঞ্জাব। স্থানীয় শিল্পীদের নাচ তারই সাথে গানের ব্যবস্থা। সব মিলিয়ে যেন এক পারিবারিক অনুষ্ঠান। সব বুথ সভাপতি, পার্টি কর্মী, মেম্বার সকলে মিলে উপস্থিত আজকের বনভোজনে। 

সবচেয়ে যেটা উল্লেখযোগ্য তা হলো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যে কথা বার বার বলছেন পুরনো কর্মীদের দলের মূল স্রোতে ফেরাতে হবে। সেই পথ অবলম্বন করে তিনি তাঁর অঞ্চলের তিনজন প্রবীণ নেতাকে সম্বর্ধনা জানিয়ে দলের মূল স্রোতে ফিরে আসার আহ্বান জানান। 

তাঁর আজকের এই অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের জামালপুর ব্লক সভাপতি মেহেমুদ খান, বিধায়ক অলক কুমার মাঝি, ব্লকের কার্যকরী সভাপতি ভূতনাথ মালিক, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি পূর্ণিমা মালিক, শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি তাবারক আলী মন্ডল, সংখ্যা লঘু সেলের সভাপতি ওয়াসিম সরকার, ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিট্টু মল্লিক সহ অন্যান্যরা। আজকের এই অনুষ্ঠানের পক্ষ থেকে দল পুনরায় জামালপুর ব্লকের সভাপতি হিসাবে মেহেমুদ খানকে দায়িত্ব দেওয়ায় তাঁকে ও বিধায়ক অলক কুমার মাঝিকে জামালপুর  ১ অঞ্চলের পক্ষ থেকে বিশেষ সম্বর্ধনা দেওয়া হয়। 

সাহাবুদ্দিন বাবু বলেন সারা বছরই সরকারি পরিষেবা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে সদা ব্যস্ত থাকেন পঞ্চায়েতের সদস্যরা। দলীয় কর্মসূচি পালন করতে সবসময়ই ব্যস্ত থাকেন কর্মীরা। তাই বছরের অন্তত একটা দিন সকলে মিলে একসঙ্গে একটু আনন্দ ও মজা করার জন্যই তাঁর এই উদ্যোগ। তাঁরা সকলে একটা পরিবার এই বার্তাই দিতে চান তিনি। সত্যিই তাঁর এই কাজের প্রশংসা করছেন তাঁর অঞ্চলের সকল তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।