চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী # ফুটবলে আর্জেন্টিনার বিশ্বজয়, ফ্রান্স কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান মেসি # জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন) এর প্রথমভাগের পরীক্ষা ২৪ জানুয়ারি থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত # বর্ধমান জেলা রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন এর শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায় #সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে # পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার # #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

মহাসমারোহে শুরু হলো ফুলের মেলা কৃষ্ণসায়র উৎসব


 

মহাসমারোহে শুরু হলো ফুলের মেলা কৃষ্ণসায়র উৎসব 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : মহাসমারোহে শুরু হয়েছে কৃষ্ণসায়র উৎসব। কৃষি, শিল্প, চিত্র, পুষ্প সব মিলিয়ে জমজমাট মিলন মেলা। মঙ্গলবার বিকেলে আনন্দঘন পরিবেশে প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে উৎসবের উদ্বোধন হয়। 

উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডঃ নিমাই চন্দ্র সাহা, সহকারী উপাচার্য ডঃ আশিস পানিগ্রাহী, রেজিস্টার ডঃ সুজিত চৌধুরী, জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধাড়া, বর্ধমানের পৌর প্রধান পরেশ চন্দ্র সরকার, বর্ষিয়ান বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়, জেলাশাসক প্রিয়াঙ্কা সিংলা, জেলা পুলিশ সুপার কামনাশীষ সেন, কষ্ণসায়র উৎসব কমিটির সভাপতি তথা বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক খোকন দাস, জামালপুরের বিধায়ক অলক কুমার মাঝি সহ বর্ধমান পৌরসভার কাউন্সিলরা এবং বর্ধমান শহরের বিশিষ্ট মানুষজন ও উৎসব প্রেমিক মানুষ।


উল্লেখ্য করোনার জন্য দু'বছর বন্ধ থাকার পর ফের ন
তুন করে আয়োজিত হল কৃষ্ণসায়র উৎসব। ৩ জানুয়ারি বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা কৃষ্ণসায়র পার্কে এই মেলার উদ্বোধন হয়। মূলত বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক খোকন দাসের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ও বর্ধমান বিশ্ব বিদ্যালয়ের সহায়তায় এই মেলার আয়োজন করা হলো। এবারে মেলায় হস্তশিল্প বিভিন্ন কাঠের জিনিস ও খাবারের দোকান নিয়ে ভরে উঠেছে উৎসব প্রাঙ্গণ। প্রত্যেক বছরের মত এ বছরও প্রতিদিন সন্ধ্যায় স্থানীয় ও অতিথি শিল্পীদের নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। মেলা চলবে ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত।

Post a Comment

0 Comments