Scrooling

নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রীসভায় পশ্চিমবঙ্গ থেকে শপথ নিলেন ডঃ সুকান্ত মজুমদার ও শান্তনু ঠাকুর # অ্যালার্জিজনিত সমস্যায় ভুগছেন ? বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডাঃ অয়ন শিকদার আগামী ২১ জুলাই বর্ধমানে আসছেন। নাম লেখাতে যোগাযোগ 9734548484 অথবা 9434360442 # আঠারো তম লোকসভা ভোটের ফলাফল : মোট আসন ৫৪৩টি। NDA - 292, INDIA - 234, Others : 17 # পশ্চিমবঙ্গে ভোটের ফলাফল : তৃণমূল কংগ্রেস - ২৯, বিজেপি - ১২, কংগ্রেস - ১

তরুনীকে কুপ্রস্তাবের অভিযোগ, দাঁইহাট পৌরসভার চেয়ারম্যানকে পদত্যাগ করার নির্দেশ দিল তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব


 

তরুনীকে কুপ্রস্তাবের অভিযোগ, দাঁইহাট পৌরসভার চেয়ারম্যানকে পদত্যাগ করার নির্দেশ দিল তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : পূর্ব বর্ধমান জেলার দাঁইহাট পৌরসভার চেয়ারম্যানকে তাঁর পদ থেকে পদত্যাগ করার নির্দেশ দিল তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যের শীর্ষ নেতৃত্ব। অভিযোগ এক তরুণীকে কুপ্রস্তাব দেওয়ার অপরাধে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব এমন নির্দেশ দিয়েছেন। চাকরির টোপ দিয়ে কুপ্রস্তাব দেওয়ার অডিও ক্লিপ সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয় একদিন আগে। এই ঘটনায় ব্যাপক শোরগোল পড়ে যায় জেলা জুড়ে। বেকায়দায় পড়ে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। বিরোধীরা ঘটনার কড়া সমালোচনা করে। দলের অন্দরেও সমালোচনার ঝড় ওঠে। 

বৃহস্পতিবার বিকালে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যের শীর্ষ নেতৃত্ব নির্দেশ পাঠায় পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসকে। জেলার নেতৃত্ব এই নির্দেশের কথা চেয়ারম্যান শিশির কুমার মণ্ডলকে জানিয়ে দেয়৷ পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় বলেন, সংবাদমাধ্যমে দাঁইহাট পুরসভার চেয়ারম্যান শিশির কুমার মণ্ডলের যে অডিও ভাইরাল হয়েছে তার জেরেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলের নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শিশির বাবুকে চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি পদত্যাগ করবেন৷ পরে যদি তাঁর এই অডিও ক্লিপ মিথ্যা প্রমাণিত হয় তখন আবার সিদ্ধান্ত পুর্নঃবিবেচনা করা হবে। 

উল্ল্যেখ, বুধবার এক তরুণীকে ফোনে চাকরির টোপ দিয়ে কুপ্রস্তাব দেওয়ার দাঁইহাট পুরসভার চেয়ারম্যান শিশির কুমার মণ্ডলের অডিও ভাইরাল হয় সামাজিক মাধ্যম। শিশির বাবুকে একটি চাকরি বা কাজ চান। কিন্তু শিশির বাবুকে তার বিনিময়ে ছাপার অযোগ্য ভাষায় কৃষ্ণনগরের একটি লজে যাওয়া এবং কুপ্রস্তাব দিতে শোনা যায়। সেখানে লজে নির্দিষ্ট দিনে ওই মহিলাকে যেতে বলতে শোনা যায়। তারপরেই ওই মহিলাকে চাকরি বা কাজ তিনি যা চাইবেন তাই পাবেন এটা বলতে শোনা যায়৷ তবে ওই অডিও ক্লিপটিতে একাধিক ফোন কল রেকর্ডিং শোনা যায়। এই ঘটনা সামনে আসতেই হইচই শুরু হয়ে যায়। সর্বত্রই নিন্দার ঝড় ওঠে। 

শিশির বাবুর ভাইরাল হওয়া অডিও ক্লিপ দলের রাজ্য নেতৃত্বের কাছে পৌঁছায়। তারপরেই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এমন কড়া সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য নেতৃত্ব। এদিকে ওই অডিও ক্লিপ ভাইরাল হতেই শিশির বাবু কাটোয়া থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন। শিশির কুমার মণ্ডল বলেন, আমি থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছি। পুরো ঘটনা তদন্ত চেয়েছি পুলিশের কাছে। পাশাপাশি দলকেও তদন্ত করে দেখার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি। আমি এমন কলঙ্ক নিতে চাই না। দল আমাকে পদত্যাগ করতে বলেছে সেটা আমি করব।