চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

শতবর্ষে বর্ধমান ডিস্ট্রিক্ট রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন # উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

বিজয়া সম্মেলনীর মঞ্চ থেকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দামামা বাজিয়ে দিলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি


 

বিজয়া সম্মেলনীর মঞ্চ থেকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দামামা বাজিয়ে দিলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী :  বিজয়া সম্মেলনীর মঞ্চ থেকেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের ধামামা বাজিয়ে দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের পূর্ব বর্ধমান জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়। শুক্রবার জামালপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে জামালপুর হাটতলা প্রাঙ্গণে বিজয়া সম্মেলনীর আয়োজন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানেই দলের পূর্ব বর্ধমান জেলা সভাপতি তথা বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আগামীকাল থেকেই আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য কাজে নেমে পড়তে হবে। 

উপস্থিত ছিলেন রাজ্য তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক  জয়া দত্ত, রাজ্য যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক তথা জামালপুরের বিধায়ক অলক কুমার মাঝি, যুব তৃণমূল কংগ্রেসের পূর্ব বর্ধমান জেলা সভাপতি রাসবিহারী হালদার,  জামালপুর ব্লক তৃণমূলের সভাপতি তথা জামালপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খাঁন, যুব তৃণমূল কংগ্রেসের জামালপুর ব্লক সভাপতি তথা পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ ভুতনাথ মালিক, ব্লকের মহিলা সভানেত্রী তথা জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ মিঠু মাঝি, তৃণমূলের ছাত্র পরিষদের ব্লক সভাপতি বিট্টু মল্লিক, জামালপুর ব্লক জয়হিন্দ বাহিনীর সভাপতি তথা জামালপুর ১ এর উপপ্রধান  শাহাবুদ্দিন মন্ডল, এসসি ওবিসি সেলের ব্লক সভাপতি তথা পারাতল গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান উত্তম হাজারি, জামালপুর পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি দেবু হেমব্রম, আইএনটিটিইউসি'র ব্লক সভাপতি তাবারক আলি মন্ডল, এস টি সেলের নেতা তারক টুডু, ব্লক সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি ওয়াসিম সরকার  সহ অন্যান্যরা। 

এদিনের বিজয়া সম্মেলনীর অনুষ্ঠানে প্রায় পাঁচ হাজার তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের উপস্থিতিতে মঞ্চ থেকে ব্লকের ১৩ টি অঞ্চলের পুরনো দিনের ২১৬ জন তৃণমূলকর্মীকে দলীয় উত্তরীয় পরিয়ে সম্মানিত করা হয়। এছাড়াও পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ, গ্রামপঞ্চায়েতের প্রধান, উপপ্রধান, কর্মাধ্যক্ষ, তৃণমূল কংগ্রেসের মহিলা সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ ব্রাহ্মন ঐক্যমঞ্চের মত অরাজনৈতিক সংগঠনের সদস্য মিলিয়ে ৭০০ জনের বেশি সংখ্যককে মঞ্চে উত্তরীয় পরিয়ে সম্মানিত করা হয়। ব্লক সভাপতি মেহেমুদ খানের এরকম আবেগঘন উদ্যোগে সকলেই আপ্লুত। 

বিজয়া সম্মেলনীর অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে দলের জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চ্যাটার্জী বলেন ১১ অক্টোবর থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত রাজ্যের সমস্ত ব্লকে পুরানো কর্মীদের নিয়ে বিজয়া সম্মেলনী করার নির্দেশ দিয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামি পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে বুথস্তরের কর্মীদের সাথে বসতে হবে। লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনের প্রেক্ষাপট আলাদা। কিন্তু পঞ্চায়েত নির্বাচনে ছোটখাটো ভুল, কর্মী সমর্থকদের ক্ষোভ নির্বাচনে অনেকটাই প্রভাব ফেলে। তাই বুথস্তরের কর্মীদের মধ্যে আলোচনা করে অভাব অভিযোগ মিটিয়ে ফেলতে হবে। এবং আগামীকাল থেকেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের কাজে নেমে পড়তে হবে।

শুক্রবার জামালপুরে বিজয়া সম্মেলনীর মঞ্চে কয়েক মিনিটের বক্তব্যে তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের আকৃষ্ট করেছেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভানেত্রী জয়া দত্ত। তাঁর বক্তব্যে দলীয় কর্মীরা উজ্জীবিত। তিনি লড়াকু নেতা হিসেবে ব্লক সভাপতি মেহেমুদ খাঁনের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, 'একজন দক্ষ সংগঠক ও লড়াকু নেতা হিসাবে মেহেমুদ খাঁন জামালপুরে ঘাস ফুল ফুটিয়েছিলেন। তাই তাঁর নেতৃত্বে আগামী পঞ্চায়েত ও লোকসভা নির্বাচনে ফের তৃণমূল কংগ্রেস বিপুল ভাবে জয়লাভ করবে'। জয়া দত্ত এদিন বিজেপি সহ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে তীব্র ভাষায় আক্রমন করেন। 

 জেলা তৃণমূলের যুব সভাপতি রাসবিহারী হালদার উপস্থিত সকলকে বিজয়ার শুভেচ্ছা  জানিয়ে নিজের বক্তব্য রাখতে গিয়ে সকল তৃণমূল  কর্মী সমর্থকদের ঐকবদ্ধ হয়ে আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে লড়াই এর জন্য আহ্বান জানান। 

তৃণমূল কংগ্রেসের জামালপুর ব্লক সভাপতি তথা পঞ্চায়েত  সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খাঁন বলেন, আজ তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় রয়েছে। কিন্তু আজ থেকে ২০ - ২২ বছর আগে বামফ্রন্টের অত্যাচারের বিরুদ্ধে যাঁরা সোচ্চার হয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের ঝান্ডা হাতে তুলে নিয়েছিলেন, রক্তাক্ত হয়েছিলেন, সেই সব পুরনো কর্মীদের অবদান না থাকলে আজ তৃণমূল কংগ্রেস থাকতো না। তাদের সেদিনের আত্মত্যাগের  জন্যেই আজ তৃণমূল কংগ্রেসের এই জনজোয়ার। তাই পুরনো দিনের তৃণমূল কর্মীদের আমন্ত্রন করে বিজয়ার শুভেচ্ছা সহ সম্মাননা জানিয়ে আমরা কৃতজ্ঞ হয়েছি । 

বিধায়ক অলক কুমার মাঝি তাঁর বক্তব্যে রাজ্য সরকারের জনকল্যাণমূলক প্রকল্পগুলির কথা উল্লেখ করে আগামী পঞ্চায়েত ও লোকসভা নির্বাচনে ব্লকের মানুষকে একত্রে সাম্পদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ডাক দেন। এদিন  ৫ হাজারের বেশি তৃণমূল কর্মী সমর্থক বিজয়া সম্মেলনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। প্রত্যেককে এদিন জামালপুর ব্লক তৃণমূলের পক্ষ থেকে মিষ্টিমুখ করানো হয়।

 এদিনের সমস্ত অনুষ্ঠানটি সর্বাঙ্গীন সুন্দর ভাবে সঞ্চালনা করেন যুব তৃণমূল কংগ্রেসের জামালপুর সভাপতি ভূতনাথ মালিক।

Post a Comment

0 Comments