চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

শতবর্ষে বর্ধমান ডিস্ট্রিক্ট রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন # উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের সম্বর্ধনা জানালো কাঁটাপুকুর সর্বজনীন দুর্গাপূজা কমিটি


 

কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের সম্বর্ধনা জানালো কাঁটাপুকুর সর্বজনীন দুর্গাপূজা কমিটি 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী :  দুর্গোৎসব উপলক্ষে কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের সম্বর্ধনা জানালো শহর বর্ধমানের ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাঁটাপুকুর সর্বজনীন দুর্গাপূজা কমিটি। প্রতিবছরের মতো এবছরও কাঁটাপুকুর মন্ডপে মা দুর্গা ডাকের সাজে সপরিবারে সজ্জিত হয়েছেন। 

শ্রী রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশন বেলুড় মঠ এবং বর্ধমানের বাজেপ্রতাপপুর শাখার শ্রীমৎ স্বামী অজ্ঞেয়ানন্দজী মহারাজ মহাপঞ্চমীতে কাঁটাপুকুর সর্বজনীন দুর্গাপূজা কমিটি আয়োজিত পুজোর প্রতিমার আবরণ উন্মোচন করেন। 

মহাষষ্ঠীর সন্ধ্যায় রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশন আশ্রমের শ্রীমৎ স্বামী শিবাত্মানন্দজী মহারাজ কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। ২০২২ সালে মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক এবং জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায় উত্তীর্ণ বিশেষ ক্ষেত্রে পারদর্শিতার জন্য তাদের হাতে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কাঁটাপুকুর সার্বজনীন দুর্গাপূজা কমিটির সম্পাদক বুদ্ধদেব সামন্ত, সভাপতি সুকুমার সাঁই, সাংস্কৃতিক শাখার যুগ্ম আহবায়ক চিত্রলেখা মুখার্জী, তাপস কুমার পাল সহ অন্যান্যরা।

স্বামী শিবাত্মানন্দজী মহারাজ এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, এই মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন থেকে আমি এখানে আসছি কিন্তু আজকের অনুষ্ঠানটা একেবারেই অন্যরকম। এলাকার কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান  আজকের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রীতি ছাত্র-ছাত্রীর সহ অন্যান্যদের উদ্দেশ্যে দু'একটি কথা বলতে চাই। দেশের কথা ভাবতে হবে দেখা যাচ্ছে ছেলেমেয়েরা পাস করার পর উচ্চশিক্ষা নিতে গিয়ে বিদেশেই থেকে যাচ্ছে, দেশের প্রতি তাদের যে কিছু কর্তব্য এবং করণীয় থাকে এটা অনেকেই ভুলেই যায়। আজকের কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের আমার আবেদন নিবেদন মিনতি তোমরা বড় হও আরও বড় হও। তোমরা দেশকে ভুলো না। তাতে তোমাদের কল্যাণই হবে। সবসময় অর্থটাই সব নয়, দেশের সম্মানটাও বড় কথা। আজকে তোমরাই আমাদের দেশের গর্ব।  তোমরাই যদি বাইরে গিয়ে বাইরে থেকে যাও তাহলে আমাদের দেশের কি হবে ? তাই তোমাদের ভাবতে হবে। আজ থেকে শক্তির উপাসনা শুরু হলো। আগামী কয়েকটা দিন মাতৃ আরাধনার মাধ্যমে মানুষের মনুষ্যত্ব জাগ্রত হবে মানুষ ক্রমশ দেবত্বের পথে এগিয়ে যাবে মায়ের কাছে এটাই কামনা।

Post a Comment

0 Comments