চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

সামনে না এলে পঞ্চায়েত নির্বাচনেও পিছিয়ে থাকতে হবে

 


সামনে না এলে পঞ্চায়েত নির্বাচনেও পিছিয়ে থাকতে হবে 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : যারা দূরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে বসে আছেন তাঁরা আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে দূরেই থেকে যাবেন। সোমবার পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে বিজয়া সম্মেলন অনুষ্ঠান হল বর্ধমান অরবিন্দ স্টেডিয়ামে। এই অনুষ্ঠানে দলীয় কর্মীরা মঞ্চের সামনে না বসে দূরে বসে থাকায় দলের জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় বারবার মঞ্চের সামনে এসে বসার অনুরোধ করেন। কিন্তু কর্মীরা মঞ্চের কাছাকাছি এসে না বসায় রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় ওই কথাগুলো বলেন। তিনি আরও বলেন, আগামী দিন খুবই কঠিন। সামান্য রোদের ভয়ে পিছিয়ে থাকলে নির্বাচনী  ময়দানে কিভাবে লড়বেন ?

এদিনের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ, জেলা পরিষদের সভাধিপতি তথা রায়নার বিধায়ক শম্পা ধাড়া, সহকারী সভাধিপতি দেবু টুডু, আইএনটিটিইউসি'র জেলা সভাপতি মহঃ সেলিম, যুব তৃণমূলের জেলা সভাপতি রাসবিহারী হালদার, মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভানেত্রী শিখা সেনগুপ্ত, বিডিএ'র চেয়ারপার্সন কাকলি তা গুপ্ত, তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ বাগবুল ইসলাম, উত্তম সেনগুপ্ত, মেন্টর উজ্জ্বল প্রামাণিক, বিধায়ক খোকন দাস, সেখ শাহনওয়াজ, মধুসূদন ভট্টাচার্য প্রমুখ।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের অধ্যক্ষ অশোক বিশ্বাস, প্রাক্তন সাংসদ ডাঃ মমতাজ সঙ্ঘমিতা চৌধুরী, বিধায়ক নিশীথ কুমার মালিক, অলক কুমার মাঝি, নবীন বাগ, মানগোবিন্দ অধিকারী, অভেদানন্দ থান্ডার, জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ মেহেবুব মন্ডল, মিঠু মাঝি, বঙ্গজননীর সভানেত্রী চন্দনা মাঝি প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন জেলার বিভিন্ন ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেস ও শাখা সংগঠনের সভাপতিরা। তবে এবারের বিজয়া সম্মেলন অনুষ্ঠানে কর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ততা ও উপস্থিতির হার ছিল গতবছরের তুলনায় কিছুটা কম।

এদিনের অনুষ্ঠানে বক্তারা সকলেই মান অভিমান ভুলে আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচনী ময়দানে সামিল হওয়ার আহ্বান জানান। দল ক্ষমতায় থাকলে নেতা থেকে কর্মী সকলেরই গুরুত্ব থাকবে। দল ক্ষমতায় না থাকলে কাগজের নৌকার মতো হাওয়ায় ভেসে যাবেন সকলেই। তাই তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত আরও শক্ত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবেই এগিয়ে আসতে হবে। 


Post a Comment

0 Comments