চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

শতবর্ষে বর্ধমান ডিস্ট্রিক্ট রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন # উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

তৃণমূল কংগ্রেসের শহীদ স্মরণ জামালপুরে


 

তৃণমূল কংগ্রেসের শহীদ স্মরণ জামালপুরে 


অতনু হাজরা, অমরপুর :  তৃণমূল কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় আসার আগেই ২০০৮ ও ২০১০ সালে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরের অমরপুরে উত্তম ভুল, ঈশায়াক মল্লিক ও পাঁচুগোপাল রুইদাস এই তিনজন খুন হয়েছিলেন। সেই সময় তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠেছিল গোটা জামালপুর। অভিযোগ সিপিআইএমের  হার্মাদ বাহিনীর হাতে খুন হন ওই তিন তৃণমূল কর্মী। তার পরে অনেক লড়াই সংগ্রামের পর দল ২০১১ সালে ক্ষমতায় আসে। ক্ষমতায় আসার পর দল এই শহীদদের স্বীকৃতি দিয়েছে। অমরপুরে তাঁদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে একটি শহীদ বেদি বানানো হয়। প্রতিবছর আজকের দিনে সেখানে গিয়ে শহীদ বেদীতে মাল্য দান করে শহীদদের সম্মান ও শ্রদ্ধা জানানো হয়। 

আজ সেখানে তাঁদের সম্মান ও শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত হন  জামালপুর ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি মেহেমুদ খান, জেলার যুব সভাপতি তথা বিধায়ক অলক কুমার মাঝি,  যুব তৃণমূলের ব্লক সভাপতি ভূতনাথ মালিক, জয় হিন্দ বাহিনীর ব্লক সভাপতি সাহাবুদ্দিন মন্ডল, এস সি সেলের সভাপতি উত্তম হাজারী,  সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি ওয়াসিম সরকার, শ্রমিক নেতা তাবারক আলী মন্ডল, ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিট্টু মল্লিক, সাহাবুদ্দিন শেখ সহ স্থানীয় নেতৃত্ব ও শহীদ পরিবারের সদস্যরা।

 মেহেমুদ খান বলেন উত্তম ভুল, ঈশায়ক মল্লিক ও পাঁচুগোপাল রুইদাসের অবদান কখনোই ভোলার নয়। তাঁরা যে কাজ সম্পূর্ন করে যেতে পারেননি সেই কাজ  তাঁদেরই করতে হবে বলে তিনি জানান। তার সাথে এটাও বলেন দল ক্ষমতায় এসে এই শহীদ পরিবার গুলোকে ভুলে যায় নি। প্রতিটি পরিবারকেই রাজ্য সরকারের মুখ্যমন্ত্রী চাকরি দিয়েছেন। উপস্থিত শহীদ পরিবারের সদস্যরা তৃণমূল কংগ্রেস, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও মেহেমুদ খানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

Post a Comment

0 Comments