জমিদার সারদা প্রসাদ সিংহ'র জন্মদিন পালন

চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী # ফুটবলে আর্জেন্টিনার বিশ্বজয়, ফ্রান্স কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান মেসি # মরণোত্তর পদ্মবিভূষণ সম্মান ওআরএসের জনক দিলীপ মহালনবিশকে #সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে # পূর্বস্থলি-১ ব্লকের সাতজন জিমনাস্টিক প্রতিযোগীর পাশে দাঁড়ালেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ # একই পরিবারের চারজনের রহস্যজনক মৃত্যু, শিল্প শহর দুর্গাপুরে ব্যাপক আলোড়ন

জমিদার সারদা প্রসাদ সিংহ'র জন্মদিন পালন


 

জমিদার সারদা প্রসাদ সিংহ'র জন্মদিন পালন 

# সংবাদ প্রভাতী, ১৯ আগস্ট ২০২২

অতনু হাজরা, জামালপুর :  পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরের চকদীঘী গ্রাম। খুবই বর্ধিষ্ণু এই গ্রাম। এই গ্রামেই আজ থেকে ১৮৬ বছর আগে জন্মগ্রহণ করেন এলাকার বিখ্যাত মানুষ শুধু মানুষ নয় মহাপুরুষ জমিদার সারদা প্রসাদ সিংহ। দান - ধ্যানের জন্য তিনি বিখ্যাত হয়ে আছেন। একপ্রকার দানবীর ছিলেন তিনি। এলাকার চকদীঘি হাই স্কুলটিও তাঁরই দানকরা। আজ তাঁর জন্মদিন উপলক্ষ্যে এই স্কুলেই একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জামালপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খান, পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ তথা জামালপুর কলেজ পরিচালন কমিটির সভাপতি ভূতনাথ মালিক।

 উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের পরিচালন সমিতির সভাপতি রমেশ দত্ত, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রাজেশ্বর দে, অমিত সিংহরায়, বিশিষ্ট সমাজসেবী আজাদ রহমান, শ্রীমন্ত সাঁতরা সহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকা ও ছাত্র ছাত্রীরা। সারদা প্রসাদ সিংহরায়ের ছবিতে মাল্যদান করেন মেহেমুদ খান ও ভূতনাথ মালিক।  বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী ও শিক্ষক শিক্ষিকারা মিলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করেন।

 মেহেমুদ খান উপস্থিত ছাত্র ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন জীবনে মানুষের মত মানুষ হতে হবে, প্রতিষ্ঠা পেতে হবে আর এগুলি করতে গেলে সারদা প্রসাদ সিংহ'র মতো মানুষদের অনুসরণ করতে হবে। এঁদের চিন্তাধারার সাথে পরিচিত হতে হবে। তিনি আরো বলেন আজকের দিনে স্কুলে এসে সারদা প্রসাদের ছবিতে মাল্যদান করতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান বলে মনে করছেন তিনি।

 ভূতনাথ বাবু বলেন সারদা প্রসাদের কথা শুধু জামালপুরের চকদীঘিতে নয় তাঁর নাম    চারিদিকে ছড়িয়ে রয়েছে। তাঁর মতো মহান মানুষের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে থাকতে পারে খুব ভালো লাগছে। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রাজেশ্বর দে বলেন, প্রতিবছরই সম্মান ও শ্রদ্ধার সাথে তাঁরা এই দিনটি পালন করে থাকেন। বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

Post a Comment

0 Comments