চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

আসানসোল উপনির্বাচনে ৫৪৭৭ ভোটে জয়ী হলেন  বিধান উপাধ্যায়


 

আসানসোল উপনির্বাচনে ৫৪৭৭ ভোটে জয়ী হলেন  বিধান উপাধ্যায় 

# সংবাদ প্রভাতী, ২৪ আগস্ট ২০২২

কাজল মিত্র, আসানসোল : আসানসোল পৌর নিগমের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে বিজয়ী হলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়। গত ২১ আগষ্ট আসানসোল পৌরসভার  ৬ নম্বর ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়।  আর সেই উপনির্বাচনের   ভোট গণনা বুধবার সকাল আটটার সময় শুরু হয় আসানসোলের মহকুমা শাসকের কার্যালয়ে।  ১৪ টি বুথের মোট  ভোটার সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ৮০০ জন। যার মধ্যে ভোট দিয়েছিল ৮৪৫৭  জন অর্থাৎ ভোট পড়ে ৮২.৬৪ শতাংশ। ভোট শেষ হওয়ার পরে ১৪ টি বুথের ইভিএম আসানসোলের মহকুমা শাসকের কার্যালয়ে স্ট্রং রুমে  রাখা হয়েছিলো। এদিন ঠিক সকাল আটটার সময় চার দলের ইলেকশন এজেন্টদের উপস্থিতিতে স্ট্রং রুম খোলা হয়। তারপর নির্দিষ্ট টেবিলে এনে গণনা শুরু হয়। সপ্তম রাউন্ডে অর্থাৎ ভোট শেষে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী বিধান উপাধ্যায় মোট  ৬৬৮৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। 

দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন সিপিএমের শুভাশীষ মন্ডল, তাঁর প্রাপ্ত ভোট ১২০৬। বিজেপির শ্রীদীপ চক্রবর্তী ৪৮৫ ও কংগ্রেসের সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় পেয়েছেন মাত্র ৮৩ টি ভোট। এদিন জয়ী হবার খবর পরেই বিধান উপাধ্যায়  প্রথমেই  পাঁচগেছিয়া বাড়িতে পৌঁছে মা  রুক্মিণী   উপাধ্যায় এর পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করে আশীর্বাদ গ্রহণ করেন। রুক্মিণী দেবী ছেলের মুখে মিষ্টি তুলে দেন।

 এরপর সেখান থেকে পাঁচগেছিয়া কার্যালয়ে স্বর্গীয় মানিক উপাধ্যায় এর  মূর্তিতে  মালা পড়িয়ে প্রণাম করেন। তিনি বারাবনি বিধান সভার তিনবারের বিধায়ক এবার আসানসোল পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে জয়ী কাউন্সিলর। যদিও তিনি কাউন্সিলর হবার পূর্বেই মেয়র পদে আসীন।  তাই ছয়মাসের মধ্যে কোনও ওয়ার্ড থেকে জয়ী হয়ে মেয়র নির্বাচিত হতে হবে। প্রশাসনিক নিয়ম মেনে সেটাই হলো। তিনি জানান মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলায় যেভাবে উন্নয়ন করছেন তাতে জয় নিশ্চিত ছিল। বিজয়ী বিধান উপাধ্যায় বলেন এলাকায় যেসকল সমস্যা রয়েছে তা শীঘ্রই সমাধান করা হবে। পানীয় জলের সমস্যা নিরসনে কাজ চলছে।

Post a Comment

0 Comments