চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

কন্যাশ্রীদের উদ্বুদ্ধ করছে ৩ কন্যার পথনাটিকা


 

কন্যাশ্রীদের উদ্বুদ্ধ করছে ৩ কন্যার পথনাটিকা 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : কণ্যাভ্রুণ হত্যা ও বাল্যবিবাহ রোধে নানা সামাজিক প্রকল্প ও লাগাতার প্রচারাভিযানের মাধ্যমে প্রশাসন অবিরত চেষ্টা চালাচ্ছে সচেতনতা গড়ে তুলতে। বিভিন্ন জায়গায় চলছে সচেতনতার প্রচার। তারই অঙ্গ হিসেবে রাধিকা মন্ডল, শ্রাবণী বিশ্বাস এবং দেবযানী আচার্য পূর্ব বর্ধমান জেলার এই তিন কন্যা পথনাটিকার মাধ্যমে পৌঁছে যাচ্ছে জেলার বিভিন্ন স্কুলে। পথনাটিকা পরিবেশনে চারজন যুবকও রয়েছে। 

সম্প্রতি ইউনিসেফ ও বর্ধমান নেহরু যুব কেন্দ্রের উদ্যোগে বাল্য বিবাহ রোধে ও শিশুদের সুরক্ষা সচেতনতায় জেলার নানা জায়গায় পথনাটিকার প্রদর্শনী শুরু করেছে। সেই মাধ্যমের হাত ধরেই এই তিন কন্য পৌঁছে যাচ্ছে স্কুলের কন্যাশ্রী ক্লাবের কাছে, বুঝিয়ে দিচ্ছে কন্যাশ্রী ক্লাবের কি কাজ, কি দায়িত্ব। রাধিকা বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী, শ্রাবণী ও দেবযানী স্নাতক স্তরের ছাত্রী, তারাও একসময় নানা প্রতিকূলতা পেরিয়ে আজ পড়াশুনা চালিয়ে যাচ্ছে। সামাজিক নানা প্রকল্পের সাহায্য নিয়ে, সেই সাহস নিয়েই এগিয়ে যেতে বলছে অন্যদের।

 আজ ৪ জুলাই মেমারির পাল্লারোড পল্লীমঙ্গল সমিতির ব্যবস্থাপনায় পাল্লারোড গার্লস হাই স্কুল, রসুলপুর বাজার চত্বর সহ নানা জায়গায় তারা পথনাটিকার উপস্থাপনা করেছে বলে জানান সমিতির তরফে সন্দীপন সরকার। নাটক শেষে ছিল কুইজের ব্যবস্থাও। পাল্লারোড গার্লস হাই স্কুলের শিক্ষিকা মৌসুমী দাস বলেন, "এহেন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই, আমাদের স্কুলের মেয়েরা অনেক কিছু শিখলো এই কর্মসূচি থেকে"। এদিন মন দিয়ে সব শুনছিল কন্যাশ্রী ক্লাবের অষ্টম শ্রেণীতে পড়া তোর্ষা ঘোষ বা দশম শ্রেণীতে পড়া সুমেধা দেবনাথ'রা কর্মশালা শেষে তাদের বক্তব্য "আমরা শিখলাম কিভাবে কোনো বন্ধু বিপদে পড়লে তাকে বাঁচাতে হবে, কন্যাশ্রী দিদিরা নাটকের মাধ্যমে সব শেখালো'' , আর ওই ৩ মেয়ে তারা পরবর্তী প্রজন্মের কন্যাশ্রীদের জন্য নি:শব্দে কাজ করে চলেছে।  

Post a Comment

0 Comments