চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

ভূমি দপ্তরে জনগণের হয়রানি বন্ধে জনস্বার্থ সম্পর্কিত পরিষেবা দিতে চালু হলো হেল্প ডেস্ক


 

ভূমি দপ্তরে জনগণের হয়রানি বন্ধে জনস্বার্থ সম্পর্কিত পরিষেবা দিতে চালু হলো হেল্প ডেস্ক 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী :  ভূমি ও ভূমি সংস্কার দপ্তরের কাজকর্ম নিয়ে তৎপর হয়ে উঠেছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। মানুষের পাশে থাকতে জনস্বার্থ সম্পর্কিত একগুচ্ছ পরিষেবা নিয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলায় চালু করেছে হেল্প ডেস্ক। ৮ জুন বুধবার জেলা ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দপ্তরে হেল্প ডেস্ক আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক প্রিয়াঙ্কা সিংলা। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা শাসক (ভূমি) তথা ডিএল এ্যান্ড এলআরও ইউনিস রিসিন ইসমাইল, ডেপুটি ডিএলআরও ফৈয়াজ আহমেদ সহ অন্যান্যরা।

জণগনের সুবিধার্থে এই পরিষেবা চালু করা হলো। ভূমি ও ভূমি সংস্কার এবং ত্রাণ ও পুনর্বাসন দপ্তর এর কোন পরিষেবা এই হেল্প ডেস্ক থেকে পাওয়া যাবে বলে জানানো হয়।

জেলাশাসক প্রিয়াঙ্কা সিংলা বলেন, ‘ভূমি দপ্তরে আসা সাধারণ মানুষকে সহায়তা দিতেই এই হেল্প ডেস্ক চালু করা হলো। এর আগে এখানে অনেকেই কাজ করাতে এসে সমস্যায় পড়েছেন। এবার থেকে সেই সমস্যায় কেউ যাতে না পড়েন সে বিষয়টির উপরে কড়া নজর রাখা হবে। জেলার সমস্ত ব্লকের  বিএলআরও অফিসেও একইসঙ্গে চালু করা হলো এই হেল্প ডেস্ক। সাধারণ মানুষ তাঁদের জমিজমা সংক্রান্ত যে কোনো বিষয় সম্পর্কে জানতে পারবেন এই হেল্প ডেস্ক থেকে। এরপর থেকে জেলার কোথাও বহিরাগতদের (দালালদের) খপ্পরে কাউকেই পড়তে হবেনা। কারুর কোন সমস্যা থাকলে সরাসরি তাঁরা আমার সঙ্গেও যোগাযোগ করতে পারেন।’

সব থেকে বড় বিষয়টি হলো জমি সংক্রান্ত যে কোনও সমস্যা কি ভাবে সমাধান হবে, কোন কাজে ফি লাগবে না আবার কোন ক্ষেত্রে কত ফি দিতে হবে, কাজের ধরন অনুযায়ী কত দিনের মধ্যে কাজ হবে সব কিছুই হেল্প ডেস্ক থেকে জানা যাবে। এর ফলে সাধারণ মানুষদের আর হয়রানির শিকার হতে হবে না। এছাড়া অনলাইন দরখাস্ত করার ক্ষেত্রে প্রয়োজনে বাংলা সহায়তা কেন্দ্রের সাহায্য নিতে পারবেন। 

Post a Comment

0 Comments