চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী # ফুটবলে আর্জেন্টিনার বিশ্বজয়, ফ্রান্স কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান মেসি # জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন) এর প্রথমভাগের পরীক্ষা ২৪ জানুয়ারি থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত # বর্ধমান জেলা রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন এর শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায় #সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে # পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার # #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সচেতনতা শিবির


 

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সচেতনতা শিবির 


অতনু হাজরা, জামালপুর : পূর্ব বর্ধমান জেলার জামালপুরে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে একটি সচেতনতা শিবিরের আয়োজন করা হয়। বিশ্ব পরিবেশ দিবসকে সামনে রেখে ৪ জুন জামালপুরের কৃষ্ণচন্দ্র পুর ও জামালপুর দোলোরডাঙা এই দুই জায়গায় এই সচেতনতা শিবির অনুষ্ঠিত হয়। এটি একটি কেন্দ্রীয় সরকারের স্কিম। এই স্কিমটির জন্য পশ্চিমবঙ্গের একটি কলেজকে সিলেক্ট করা হয় সেটি এম সি কে ভি ইনস্টিটিউট অফ ইঞ্জিনিয়ারিং লিলুয়া। এর কো অর্ডিনেটর হলেন ওই কলেজেরই অধ্যাপক ড. ব্রজেন্দ্রনাথ দে। স্কিমটি হলো উন্নত ভারত অভিযান যা ভারত সরকারের শিক্ষা মন্ত্রকের। এই স্কিমটিতে জামালপুর ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের পাঁচটি গ্রামকে বেছে নেওয়া হয়। তার মধ্যে দুটি জায়গায় এই সচেতনতা শিবির করা হয়। মূলত গ্রাম্য এলাকায় গত দু'দিনের যে সমস্ত বর্জ্য সেগুলিকে পৃথক করণ করা এবং তার থেকে পুনর্ব্যবহার করার জন্য বিভিন্ন জিনিস তৈরি করা। যেমন পলিথিন থেকে  চেকার স্টাইলস, মাটিগুলো থেকে জৈব সার ইত্যাদি। 

আজ এই সচেতনতা শিবির করার জন্য এম সি কে ভি ইনস্টিটিউট অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষিকা ও ছাত্র ছাত্রীরা জামালপুরে এসে মানুষকে সচেতন করেন তার পাশাপাশি বিভিন্ন বক্তব্য এবং সচেতনতা মূলক কিছু ছোট পথনাটিকা মঞ্চস্থ করেন তাঁরা। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জামালপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খান,  জয়েন্ট বিডিও গৌতম কুমার দত্ত,  জামালপুর থানার সেকেন্ড অফিসার রতন দাস, জামালপুর ১ পঞ্চায়েতের প্রধান  ডলি নন্দী, উপপ্রধান শাহাবউদ্দিন মন্ডল সহ অন্যান্যরা। যদি এই স্কিম টি ঠিকঠাকভাবে রূপায়ণ করা যায় তাহলে গ্রামবাংলায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় একটি বিপ্লব ঘটে যাবে। এবং সে ব্যাপারে যথেষ্ট আশাবাদী ব্রজেন্দ্রনাথ বাবু।

Post a Comment

0 Comments