চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

কলকাতায় শহীদ স্মরণ সমাবেশকে সফল করে তুলতে জেলায় যুব তৃণমূলের প্রস্তুতি সভা


 

কলকাতায় শহীদ স্মরণ সমাবেশকে সফল করে তুলতে জেলায় যুব তৃণমূলের প্রস্তুতি সভা 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী :  কলকাতায় ২১ শে জুলাই শহীদ স্মরণ সমাবেশকে সফল করে তুলতে গোটা রাজ্য জুড়ে বিভিন্নভাবে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। পূর্ব বর্ধমান জেলায়ও প্রস্তুতির কাজ চলছে। বৃহস্পতিবার যুব তৃণমূল কংগ্রেস জেলাস্তরে একটি প্রস্তুতি সভার আয়োজন করেছিল বর্ধমান ভবনে। যুব তৃণমূল কংগ্রেসের পূর্ব বর্ধমান জেলা সভাপতি তথা বিধায়ক অলক কুমার মাঝির নেতৃত্বে এদিনের সভায় উপস্থিত

 ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলার মুখপাত্র প্রসেনজিৎ দাস, যুব তৃণমূলের রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক শান্তনু কোনার, জেলার প্রাক্তন সভাপতি তথা বর্তমানে বর্ধমান পৌরসভার কাউন্সিলর রাসবিহারী হালদার, পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ মিঠু মাঝি, বর্ধমান পৌরসভার কাউন্সিলর তথা যুব নেতা নুরুল আলম সহ যুব তৃণমূলের জামালপুর ব্লক সভাপতি তথা পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ ভূতনাথ মালিক, বর্ধমান ২ ব্লক সভাপতি তথা পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ শৌভিক পান, বর্ধমান ১ ব্লক সভাপতি মানস ভট্টাচার্য, যুব তৃণমূলের জেলা সহসভাপতি তথা জামালপুর ১ পঞ্চায়েতের উপপ্রধান শাহাবউদ্দিন মন্ডল, জেলার যুব নেত্রী তথা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মামনি মুর্মু, টিএমসিপি'র জেলা সভাপতি সাদ্দাম হোসেন সহ অন্যান্য ব্লকের যুব সভাপতিরা সহ জেলা নেতৃত্ব।

সবার শুরুতেই যুব তৃনমূলের পূর্ব বর্ধমান জেলা সভাপতি তথা বিধায়ক অলক কুমার মাঝি শহীদ স্মরণ সমাবেশে যাওয়ার বিষয়ে দলের যে সমস্ত গাইডলাইন রয়েছে সেগুলো তুলে ধরেন। এছাড়া প্রচার প্রসঙ্গে তিনি বলেন ব্যানার, ফেস্টুন দেয়াল লিখন সহ সব ধরনের প্রচারের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র যুব তৃনমূলের নামে প্রচার হবে। অন্য কোনভাবে অথবা ব্যক্তিগত নামে কোন প্রচার অনুমতি দলের শীর্ষ নেতৃত্ব দেননি। 

যুব তৃনমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক শান্তনু কোনার বলেন, জেলায় রেল লাইনের ধার বরাবর যে ব্লকগুলো রয়েছে সেখানকার দলীয় নেতৃত্ব এবং কর্মীদের উদ্দেশ্যে বার্তা দেন শহীদ সমাবেশে যাওয়ার জন্য যতটা সম্ভব ট্রেন পরিষেবা ব্যবহার করুন। বাস বা অন্য কোনো পরিবহন ব্যবহার করার ক্ষেত্রে যতটা সম্ভব সুশৃংখলভাবে যাওয়ার জন্য চেষ্টা করতে হবে। এছাড়া সাতসকালেই হাওড়া স্টেশনের বড় ঘরের নিচে ব্যানার নিয়ে দলীয় স্তরে উপস্থিত থাকার বিষয়ে গুরুত্ব দেন।

বর্ধমান পৌরসভার কাউন্সিলর তথা যুব নেতা নুরুল আলম বলেন, বর্ধমান স্টেশন থেকে যে সমস্ত কর্মীরা ট্রেনে উঠবেন তাদের যাতে কোন রকম অসুবিধা না হয় সে বিষয়টি তিনি এবং তার সহযোগী নেতৃত্ব দেখভাল করবেন।

এদিনের সভায় দলের ব্লক স্তর থেকে জেলা স্তর পর্যন্ত অনেকেই বক্তব্য রাখেন এবং শহীদ সমাবেশে প্রস্তুতির বিষয়ে সু পরামর্শ দেন। সকলেই বলেন এ ধরনের একটি প্রস্তুতি সভা আয়োজনের খুবই দরকার ছিল। জেলা সভাপতি অলক মাঝি সঠিক সময়ে সভা আয়োজন করে কর্মীদের নির্দেশিকা প্রদানে সহায়তা করার জন্য তাকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান সকলেই।

Post a Comment

0 Comments