চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

'রবীন্দ্র ভারতী সোসাইটি'র বিশ্বকবি ও বিদ্রোহী কবি কে নিয়ে সপ্তাহ ব্যাপি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান


 

'রবীন্দ্র ভারতী সোসাইটি'র বিশ্বকবি ও বিদ্রোহী কবি কে নিয়ে সপ্তাহ ব্যাপি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান 


  🟣  মোল্লা জসিমউদ্দিন, কলকাতা 



➡️  কবিপ্রণামে জোড়াসাঁকোর 'রবীন্দ্র ভারতী সোসাইটি'। উত্তর কলকাতার জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়ি প্রাঙ্গনে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান রবীন্দ্র ভারতী সোসাইটি গত ২২ শে মে থেকে ২৯ শে মে, এই আট দিন ধরে সাড়ম্বরে পালন করে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১ তম জন্মোৎসব সোসাইটির নিজস্ব প্রেক্ষাগৃহ রথীন্দ্রমঞ্চে। মাঝে ২৪ তারিখে পালিত হয় নজরুল জয়ন্তী - বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মদিন স্মরণ করে। প্রতি সন্ধ্যায় বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের বর্ণময় উপস্থিতি, বক্তৃতামালা, সম্মেলক গান, সমবেত আবৃত্তি, একক আবৃত্তি, গান, নৃত্যালেখ্য, মঞ্চনাটক  ইত্যাদি পরিবেশনার মধ্য দিয়ে মনোজ্ঞ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কবিগুরুর প্রতিকৃতির সামনে প্রদীপ জ্বালিয়ে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন করে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন সোসাইটির সভাপতি বিচারপতি চিত্ততোষ মুখোপাধ্যায়। মঞ্চে বিশিষ্ট অতিথি সমাবেশ ছিল প্রতিদিন। উপস্থিত ছিলেন বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় এর উপাচার্য শিবাজী প্রতিম বসু, চন্দননগর পৌর নিগমের মেয়র রাম চক্রবর্ত্তী, বন্ধন ব্যাঙ্কের প্রতিষ্ঠাতা চন্দ্রশেখর ঘোষ, রবীন্দ্র ভারতী সোসাইটির কার্যকরী সভাপতি ডঃ সুজিত কুমার বসু, কর্মপরিচালন সমিতির সদস্যা  অমিতা দত্ত,  বিশিষ্ট রবীন্দ্রবিশেষজ্ঞ  সত্যকাম বাগচী, বাংলাদেশ থেকে আমন্ত্রিত নজরুল বিশেষজ্ঞ জনাব শামসুল হুদা, কলকাতা মহানগরের উপ-মহানাগরিক  অতীন ঘোষ, বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ সুকুমার মুখোপাধ্যায়, ডাঃ জি পি সরকার, বিচারপতি সৌমিত্র পাল,  ধীমান দাশ, অধিকর্তা কে.সি.দাশ, বিধায়ক বিবেক গুপ্তা, স্থানীয় পৌরপিতা  রাজেশ সিনহা, প্রাক্তন বিধায়ক  দীনেশ বাজাজ প্রমুখ। প্রতি সন্ধ্যায় অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রারম্ভিক ভাষণ দিয়ে সূচনা করেন সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায়। 

আমন্ত্রিত বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংস্থা পরিবেশনা করেন সমবেত গান, আবৃত্তি, নৃত্য আলেখ্য, মঞ্চনাটক ইত্যাদি।  সকলের নজর কাড়ে নৃত্যগুরু বন্দনা সেন পরিকল্পিত এবং  সুচন্দ্রা ব্যানার্জী মিত্র পরিবেশিত "শ্রীমদ্ভাগবত গীতা ও গীতাঞ্জলি" শীর্ষক নৃত্যালেখ্যটি। আমন্ত্রিত অন্যান্য সংস্থা ছাড়াও রবীন্দ্র ভারতী সোসাইটির শিল্পীকলাকুশলীরাও পরিবেশন করেন সমবেত সঙ্গীত ও আবৃত্তি বিভিন্ন দিনে। একক গানে ছিলেন গৌতম মিত্র, রাজেশ্বর ভট্টাচার্য, লোপামুদ্রা মিত্র, শিঞ্জিনী আচার্য্য মজুমদার, অগ্নিভ বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজশ্রী ভট্টাচার্য, সুস্মিতা গোস্বামী, শম্পা কুণ্ডু, সোনালী কাজী, সৈকত মিত্র, শৌণক চট্টোপাধ্যায়, চন্দ্রাবলী রুদ্র দত্ত, দীপাবলী দত্ত, অনুশীলা বসু, দেবমাল্য চট্টোপাধ্যায়, এরিনা মুখোপাধ্যায়, সুমন পান্থী, অলোক রায়চৌধুরী, স্বপন সোম, দেবারতি সোম, মনোজ ও মনীষা মূরলী নায়ার, রীনাদোলন বন্দ্যোপাধ্যায়, শ্রীতমা রায়, জয়ন্তী সরেন, পিয়া গুহ রায়, মালবিকা বোস, অধ্যাপক পার্থজিত সেনগুপ্ত, সৌমি বসু ও আরও অনেকে। কবিতা আবৃত্তি করেন ব্রততী বন্দ্যোপাধ্যায়, মধুমিতা বসু, ঈশিতা দাস অধিকারী, মেধা বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রবীর ব্রহ্মচারী, স্বপ্না দে, কাজল সুর, ইন্দিরা ব্যানার্জী, দোলনচাঁপা সরকার, শ্রাবন্তী সাহা, মিতা ঘোষ, সলিল সরকার, সাবিনা ইয়াসমিন, শতানীক ভট্টাচার্য, অমল পাহাড়ী, বাসবী চৌধুরী, শম্পা বটব্যাল, বর্ণালী সরকার, রূপা মুখোপাধ্যায় প্রমুখ। 

শেষ সন্ধ্যায় শেষ আকর্ষণ ছিল রবীন্দ্র ভারতী সোসাইটির নাট্যকলাকুশলী দ্বারা অভিনীত মঞ্চনাটক 'মানভঞ্জন' - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছোটগল্প অবলম্বনে নির্মিত নাটক। নাট্যরূপ দানে  শ্যামলী বসু, নাট্যনির্দেশনায় প্রসেনজিত ঘোষ ও দেবাশীষ সেনগুপ্ত। আট দিন ধরে চলা কবিপ্রণাম শেষ হয় ভারতীয় জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে। সোসাইটির তরফে সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষকে বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সাধারণ সম্পাদক সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায়।

Post a Comment

0 Comments