চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

ড্রোন তৈরি করে সকলকে অবাক করে দিয়েছে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র


 

ড্রোন তৈরি করে সকলকে অবাক করে দিয়েছে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র 


অভিজিৎ রায়, ডিজিটাল ডেস্ক, সংবাদ প্রভাতী : ড্রোন তৈরি করে সকলকে অবাক করে দিয়েছে ব্যারাকপুর আর্মি পাবলিক স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র  সুতীর্থ ঘোষ।  শৈশব থেকেই ড্রোন দেখতে ভালোবাসত সুতীর্থ।  ধীরে ধীরে ড্রোন এর প্রতি উৎসাহ তাঁর বেড়ে ওঠে।  শুরু হয় নিজের হাতে ড্রোন তৈরি করার সদিচ্ছা।  বাড়িতে বসেই কম্পিউটারে কীভাবে ড্রোন তৈরি করা হয় তা শিখে নিয়ে, ড্রোন তৈরির খুঁটিনাটি যন্ত্রপাতি একত্রিত করে ঘরে বসেই তৈরি করে ফেলে ড্রোন। 

 সুতীর্থ জানায়, আমি দেখেছি ড্রোন অনেক কাজে লাগে। যেমন সেনাবাহিনী থেকে শুরু করে পুলিশও ড্রোন ব্যবহার করে থাকে।  তাই আমার ইচ্ছা হয়েছিল ড্রোন তৈরি করার। ড্রোন তৈরি করতে পেরে সতীর্থ খুব খুশি।  বারাসাতের বাসিন্দা সঞ্জিত ঘোষ ও স্ত্রী অনিন্দিতা রায় ঘোষ দুজনেই শিক্ষক - শিক্ষিকা।  তাদের  দুই সন্তান সুতীর্থ ও সৃজন ঘোষ। বড় ছেলে সুতীর্থ এত ছোট বয়সে ড্রোন তৈরি করতে পারায়  তারা খুবই খুশি।  

সুতীর্থ'র অনিন্দিতা জানান,  বড় ছেলের ড্রোন টেকনোলজি নিয়ে খুবই উৎসাহ লক্ষ্য করেছি এবং খুব ছোট বয়স থেকেই এই নিয়ে চর্চা করতে ভালোবাসত।  অনেকদিন ধরেই ইচ্ছা ছিল ড্রোন  বানানোর।  শেষমেশ তৈরি করে উড়িয়েও দেখিয়েছে।  তিনি জানান, স্কুলে এই ব্যাপারটি নিয়ে খুবই চর্চা হয়েছে।  এছাড়া স্কুলে একটি ড্রোন রোবটিক ল্যাব তৈরি হচ্ছে,  সেই ল্যাবের ছাত্রদের কাছে সে অনুপ্রেরণা। সুতীর্থর ভাই সৃজনও পাঁচ বছর বয়সে ছবি আঁকায় সকলকে অবাক করে দিয়েছে। অনিন্দিতা জানান, সৃজনের আঁকা ছবি ইতিমধ্যে দুর্গাপুর প্রেস ক্লাবের 'আলো' নামে একটি পত্রিকায়  স্থান পেয়েছে।  এমনকি বিদেশে সেজ  ক্যাম্প নামে এক ইনস্টিটিউটে  অনলাইন ট্রেনিং নিচ্ছে।  সেখানেও  সৃজন সারা বিশ্বের খুদে শিশুদের অনুপ্রেরণা বলে জানা যায়।

Post a Comment

0 Comments