চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪ জন সহ ৫ জনের মৃত্যু, শোকের ছায়া


 

সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪ জন সহ ৫ জনের মৃত্যু, শোকের ছায়া 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : সাত সকালেই মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল ৫ জনের। সোমবার দুর্ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের জাতীয় সড়ক NH2B-র ঝিঙ্গুটিতে। ইকো রিকশার সঙ্গে ডাম্পারের সংঘর্ষ ঘটে। দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। অন্যজন ইকো রিকশা চালক।

সোমবার সকালে বর্ধমান - বোলপুর জাতীয় সড়কে একটি একটি ইকো রিকশা চড়ে একই পরিবারের চার জন মহিলা  গুসকরার দিকে যাচ্ছিলেন। সেই সময়ে গুসকরার দিক থেকে পাথর বোঝাই একটি দশ চাকার ডাম্পার বর্ধমানের দিকে আসছিল। ইকো রিকশাটি ঝিঙ্গুটি মোড়ের কাছে এসে জাতীয় সড়কে উঠার সঙ্গে সঙ্গেই ডাম্পারটি সজোরে ধাক্কা মারে যাত্রীবোঝাই ইকো রিকশাটিকে। এবং ডাম্পারটিও রাস্তার পাশে উল্টে যায়।  ঘটনাস্থলেই ইকো রিকশার চালক সহ  চার জন যাত্রীর মৃত্যু হয়। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে ডাম্পারের চালক ও খালাসি পালিয়ে যায়। 

যদিও দুর্ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয়দের তৎপরতায় সকলকেই বর্ধমান হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। হাসপাতালে চিকিৎসকরা সকলকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। মৃতরা হলেন গঙ্গা সাঁতরা(৬৫), মামণি সাঁতরা(৩২), সরস্বতী সাঁতরা(৫৯), সীমা সাঁতরা(৪০) ও ইকো রিকশা চালক মইনুদ্দিন মিদ্দ্যা(৩৬)। মৃত চার মহিলার বাড়ি বর্ধমানের পালিতপুরে। ইকো রিকশা চালকের বাড়ি সিজেপাড়া এলাকায়। জানা গেছে, ওই চার মহিলা সকালে জীবিকার সন্ধানে মাছ ধরার জন্য রওনা দিয়েছিলেন।

এদিকে সকাল সকাল ওই ঘটনার পর জাতীয় সড়কে ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়।স্থানীয় মানুষজন বেপরোয়া যান চলাচলের জন্য বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

Post a Comment

0 Comments