চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

কেমন হলো আসানসোল পৌর নিগমের ভোট


 

কেমন হলো আসানসোল পৌর নিগমের ভোট 


কাজল মিত্র, আসানসোল :  বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনার মধ্যে দিয়েই আসানসোল পুরনিগমের ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে।  সকাল থেকেই আসানসোল পৌর নিগমের ১০৬ টি ওয়ার্ডের প্রতিটি বুথে ভোট প্রক্রিয়া ছিল স্বাভাবিক। তবে  দুপুরের পরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। রেলপারের ধাদকায় বুথের সামনে শূন্যে ৮ রাউন্ড গুলি চালানোর অভিযোগ তুলেছে বিরোধী দলের তরফে এবং বিভিন্ন জায়গা থেকে ভোট লুট এর অভিযোগই ওঠে আসে।

তবে উত্তপ্ত পরিস্থিতি সামাল দিতে এলাকায় এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল। বিজেপি নেতা জিতেন্দ্র তেওয়ারির অভিযোগ এই গুলি চালানোর পেছনে শাসক দলের হাত আছে। এছাড়া তিনি বলেন বাইরে থেকে দুষ্কৃতি এনে বিভিন্ন হোটেলে রেখে তাদের দিয়ে ছাপ্পা ভোট দেওয়ানো হয়। এই অভিযোগও তোলেন তৃণমূলের দিকে। তবে,শাসক দলের তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

অন্যদিকে, বিকেল তিনটের পরে পুরনিগমের ৪৭ নং ওয়ার্ডের হটন রোডের বুধা মোড় ডিএভি স্কুলের ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এখানেও বুথ দখল করার অভিযোগ করা হয়েছে। ৪৭ নম্বর ওয়ার্ডের সিপিএমের এজেন্ট অভিযোগ তুলে বাধা সৃষ্টি করেন আর তখনই বচসা  শুরু হয় শাসক দলের সাথে।  এরপর গন্ডগোল বিশাল আকার ধারণ করে। দুই রাজনৈতিক দলের কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে বচসা লেগে যায়। এক পক্ষ অন্য পক্ষের দিকে ইঁট ছোঁড়া শুরু করে। গোটা এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। 

খবর পেয়ে আসানসোল পৌরনিগমের দায়িত্বে থাকা আইজি(পশ্চিমাঞ্চল) সঞ্জয় সিং ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। ছুটে আসে বিশাল পুলিশ বাহিনী। ইঁট বৃষ্টির মধ্যে পড়ে আহত হয় ৪ পুলিশ কর্মী। তারমধ্যে একজন ডিএসপি পদ মর্যাদার পুলিশ অফিসার আছেন। 

এরপর এলাকায় সঞ্জয় সিংয়ের নেতৃত্বে রুটমার্চ করে পুলিশ। ঘটনাস্থলে পৌঁছান আসানসোল দূর্গাপুরের পুলিশ কমিশনার এন সুধীর কুমার নীলকান্তম এবং  পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করে দু'পক্ষকে সরিয়ে দেয়। পরে আইজি পশ্চিমাঞ্চল বলেন, একটা গন্ডগোল হয়েছিল। তারমধ্যে ইঁট ছোঁড়া হয় তাতে ৪ পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন। ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।অন্যদিকে, এদিন বিকেল চারটের পরে ৪০ নং ওয়ার্ডে জিটি রোডের উষাগ্রামের বিবি কলেজের বুথে ইভিএম ভাঙচুর করার ঘটনা ঘটে। অভিযোগ, এলাকার বাসিন্দারা ভোট দেওয়ার জন্য অনেকক্ষন লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন কিন্তু  ভোট দিতে না পেরে তারা দেখেন বেশ কিছু যুবক  তাদের ভোট দিয়ে দিচ্ছে। একই সাথে আসানসোল পৌরনিগমের কুলটি পৌর এলাকার ৬৬ নং ওয়ার্ডের বরাকরের একটি বুথে ইভিএম ভাঙার ঘটনা সামনে এসেছে।

 কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের প্রার্থীদের অভিযোগ তৃণমূলের দুস্কৃতিরা  বুথে ঢুকে বুথের ইভিএম ভেঙে দেন। তারা এনিয়ে নির্বাচন কমিশনারের কাছে ৬৬ নম্বর ওয়ার্ডে পুনঃ নির্বাচনের জন্য আবেদন জানান। তবে খবর পেয়ে এলাকায় আসে পুলিশ ও নির্বাচন কমিশনের কর্মীরা। জানা গেছে, ইভিএম ভাঙ্গার পাশাপাশি তাতে জলও ঢেলে দেওয়া হয়েছে। তবে ৬৬ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের  প্রার্থী অশোক পাসোয়ান এর বক্তব্য কে বা কারা এই ইভিএম মেশিন ভেঙেছে তা তার জানা নেই,  তবে যদি ইভিএম মেশিন ভাঙ্গা হয়ে থাকে তাহলে প্রতিটি দলের ভোট ওই ইভিএম মেশিনে ছিল তা সবই নষ্ট হয়ে পড়বে। তাই তিনি সমস্ত ঘটনা অস্বীকার করেন। এবং বলেন তার বুথে সুষ্ঠ ভাবে ভোট প্রক্রিয়া হয়েছে।