চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী # ফুটবলে আর্জেন্টিনার বিশ্বজয়, ফ্রান্স কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান মেসি # জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন) এর প্রথমভাগের পরীক্ষা ২৪ জানুয়ারি থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত # বর্ধমান জেলা রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন এর শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায় #সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে # পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার # #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

করোনা সংক্রমণ পূর্ব বর্ধমানে ২৪ ঘন্টায় সেঞ্চুরির দোরগোড়ায়


 

করোনা সংক্রমণ পূর্ব বর্ধমানে ২৪ ঘন্টায় সেঞ্চুরির দোরগোড়ায় 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : পূর্ব বর্ধমান জেলায় করোনা সংক্রমণের গ্রাফ দ্রুত বাড়ছে।  গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় করোনা সংক্রমণ সেঞ্চুরির দোরগোড়ায়। ইংরেজি বছরের প্রথম দিন পূর্ব বর্ধমান জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৪৮ জন। সংক্রমণের হার দুদিন একটু নেমে গত ২৪ ঘন্টায় এক লাফে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৯ জন। বর্ধমান পৌর এলাকায় ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৯ জন। স্বাভাবিকভাবেই পরিস্থিতির ভয়াবহতা বুঝতে অসুবিধা হচ্ছে না। ইতিমধ্যেই বর্ধমান কৃষ্ণসায়র উৎসব, মাঘ উৎসব বাতিল হয়েছে। রাজ্য সরকারের তরফে ১৫ থেকে ১৮ বয়সীদের টিকাকরণ শুরু হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনও বিধিনিষেধ নিয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করে চলেছে। বেপরোয়া লোকজনকে গ্রেপ্তার করছে। আসলে করোনা সংক্রমণের রাশ টানতেই তৎপর প্রশাসনিক কর্তারা। 

গত ২৪ ঘন্টায় পূর্ব বর্ধমান জেলায় করোনা পজিটিভ ৯৯ জন।  এরমধ্যে বর্ধমান পৌর এলাকার রয়েছেন ২৯ জন। বাকিদের মধ্যে আউসগ্রাম ২ ব্লকে ১ জন, ভাতাড় ব্লকে ৫ জন, বর্ধমান ১ ব্লকে ৪ জন, বর্ধমান ২ ব্লকে ১ জন, গলসি ১ ব্লকে ৭ জন, জামালপুর ব্লকে ৯ জন, কালনা ১ ব্লকে ৩ জন, কেতুগ্রাম ২ ব্লকে ১ জন, খন্ডঘোষ ব্লকে ১ জন,  কাটোয়া পৌর এলাকায় ৫ জন, মন্তেশ্বর ব্লকে ৩ জন, মেমারি পৌর এলাকায় ৪ জন, মঙ্গলকোট ব্লকে ৩ জন, মেমারি ২ ব্লকে ৮ জন, পূর্বস্থলি ২ ব্লকে ২ জন, কাটোয়া পৌর এলাকায় ৫ জন, দাঁইহাট পৌর এলাকায় ১ জন এবং অন্য জেলা থেকে আসা ৮ জনের রিপোর্ট পজিটিভ হয়েছে। সব মিলিয়ে করোনা অতিমারি পরিস্থিতি অনেকটাই বেড়েছে। জেলায় আজ পর্যন্ত এ্যাকটিভ পেসেন্টের সংখ্যা ২৯০ জন। সাধারণ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করার ফলেই যে এই অবস্থা সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না। সকলের কাছে অনুরোধ এবার অন্তত সাবধানে থাকুন। রাজ্য সরকারের বিধিনিষেধের সঙ্গে কোভিড স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলুন। 


Post a Comment

0 Comments