চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

মেরুদন্ডের জটিল চিকিৎসায় দৃষ্টান্ত স্থাপন


 মেরুদন্ডের জটিল চিকিৎসায় দৃষ্টান্ত স্থাপন 

জগন্নাথ ভৌমিক, বর্ধমান
সংবাদ প্রভাতী, ২৮ জানুয়ারি ২০২২ 


মেরুদন্ডের নানান সমস্যার জন্য এখন আর অন্য রাজ্যে যেতে হবে না। শহর বর্ধমানেই অত্যাধুনিক চিকিৎসা পরিষেবা দিচ্ছে কল্যানী ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্স। আসলে মেরুদণ্ডের অসুখ সম্বন্ধে আজও অনেকের ধারণা স্পষ্ট নয়। হয়তো কিছুটা অবহেলিত। এছাড়া, মেরুদণ্ডের অপারেশন সম্বন্ধে চিরাচরিত ভীতিও রয়েছে। বহু মানুষ রয়েছেন যারা পথ দুর্ঘটনায় কিম্বা মেরুদণ্ডের টিউবারকুলোসিস, টিউমার বা মায়োলোপ্যাথির কারনে চলচ্ছক্তিহীন হয়ে পড়েছেন, হারিয়েছেন দু পা বা হাত ও পায়ের বল। এই সব মানুষ, যারা জীবনে চলচ্ছক্তি হারিয়েছিলেন, কিন্তু আশা হারাননি, স্পাইনাল সার্জারীর পর আবার নতুন ভাবে জীবনে চলা শুরু করেছেন। তাদের আনন্দ ভাগ করে নেওয়ার উদ্দেশ্যে শুক্রবার  "অপরাজিত" অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বর্ধমানের  কল্যানী ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্স বা কিমস।

 উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট অস্থি বিশেষজ্ঞ সার্জেন তথা কিমস্ এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডাঃ দেবব্রত ব্যানার্জী, রাজ্যের স্বাস্থ্য প্রশাসনে দক্ষ  আধিকারিক ডাঃ বিজয় প্রসাদ মুখোপাধ্যায়, প্রখ্যাত স্পাইন সার্জেন ডাঃ সৈকত সরকার, বিশিষ্ট স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ নাসিমা খন্দেকার সহ অন্যান্য চিকিৎসকরা।

স্পাইনাল সার্জারি হয়েছে এমন চল্লিশ জনকে এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থাপিত করেন ডাঃ সৈকত সরকার। এদের মধ্যে কয়েকজনকে এক সময়ে স্ট্রেচারে করে কিমস এ নিয়ে আসা হয়েছিল। যাঁরা ভেবেছিলেন আর কোনও দিন হাঁটতে পারবেন না। কিন্তু অপারেশনের পর আজ প্রত্যেকে হেঁটে চলে জীবনের স্বাভাবিক ছন্দে ফিরেছেন। তাইতো ডাঃ সৈকত সরকার গর্বের সাথে বলেন " আমরা মেরুদণ্ড সোজা রাখি"। 

এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে কল্যাণী ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্স এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডাঃ দেবব্রত ব্যানার্জী হাসপাতাল গড়ে তোলার প্রেক্ষাপট সকলের সামনে তুলে ধরেন। এক সময়ে তিনি অন্য রাজ্যে গিয়ে লক্ষ্য করেছেন বাংলার মানুষ চিকিৎসার জন্য হন্যে হয়ে কি ভাবে ছোটাছুটি করছেন। একজন চিকিৎসক হিসেবে লজ্জাবোধ হতো। তখন থেকেই ভাবনা শুরু। ডাঃ ব্যানার্জী বলেন, আজ তিনি গর্বিত। মাত্র সাড়ে তিন বছর হলো কল্যানী ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্স গড়ে তোলা সম্ভব হয়েছে। এরই মধ্যে বিপুল সম্ভাবনা ও সাফল্যে আজ পূর্ব বর্ধমান সহ বাংলার মুখ উজ্জ্বল করেছে কল্যানী ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্স।


Post a Comment

0 Comments