চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

সামাজিক কাজে গ্রামবাসীর সম্মিলিত উদ্যোগে দৃষ্টান্ত


 

সামাজিক কাজে গ্রামবাসীর সম্মিলিত উদ্যোগে দৃষ্টান্ত 


গৌতম দাস, পালশিট : কাদা মাটির প্রলেপ পড়ে পাঁচ কিলোমিটার পিচ রাস্তা হারিয়ে গিয়েছিল। রাস্তায় চলাচল করতে গিয়ে মানুষের প্রতিনিয়ত মনে হতো গ্রামের কোনও মেঠো পথে চলেছি। পিচ রাস্তার উপরে কাদার প্রলেপে সামান্য দু'চার ফোটা বৃষ্টিতেই সাধারণ মানুষের নাজেহাল অবস্থা। প্রতিদিনই ছোট-বড় দুর্ঘটনাও ঘটছিল। কাদা শুকিয়ে আসতেই ধুলোতে বেসামাল অবস্থা। সব মিলিয়ে পথ চলাচলে মানুষ দুর্বিষহ পরিস্থিতির শিকার। এটা কোনও কাল্পনিক গল্পের উপস্থাপনা নয়। পূর্ব বর্ধমান জেলার পালশিট এলাকার একেবারে সত্যি ঘটনা। 

কিছুদিন ধরেই পালশিট স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় রেলের কাজ চলছে। বিভিন্ন গ্রাম থেকে ট্রাক্টারে করে মাটি এনে রেল লাইন পাতার প্রস্তুতির কাজ হচ্ছে। প্রতিদিন ট্রাক্টারে মাটিয নিয়ে যাওয়ার সময় রাস্তায় মাটি পড়ছে। একই সঙ্গে ধান কাটার মরশুমে ট্রাক্টারে ধান তুলতে গিয়েও জমির কাদামাটি রাস্তায় উঠেছে। কাদা মাটির জোড়া ফলায় হারিয়ে গেছে পিচ রাস্তা। উদ্ভূত পরিস্থিতি থেকে গ্রামের মানুষকে সুরাহা দিতে এগিয়ে এসেছেন সমাজসেবী তথা ব্যাঙ্ক অফিসার রাজীব ব্যানার্জী। তাঁর প্রচেষ্টায় রাস্তার উপরে এঁটেল মাটির আস্তরণ পরিস্কার করার কাজ শুরু হয়েছে। রাজীব বাবুর ডাকে সাড়া দিয়ে গ্রামের ছোট থেকে বড় সকলেই পিচ রাস্তার হারিয়ে যাওয়া গৌরব ফিরিয়ে আনতে কোদাল বেলচা ধরেছেন। গ্রামের রাস্তার পরিবেশ ও সামাজিক সুরক্ষায় এক অনন্য উদ্যোগের দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো পালশিট এলাকার মানুষজন। 

রাজীব ব্যানার্জীর কথায়  আমি পালশিট এলাকার একজন ব্যাঙ্ক কর্মচারী তার সঙ্গে আমার সামর্থ্য অনুযায়ী সমাজিক কাজ করতে ভালোবাসি। দীর্ঘদিন ধরে মাঠের চারপাশের ধান উঠার ফলে  ট্রাক্টর চলাচলে বহু মাটি পিচের রাস্তার উপরে পড়েছে এবং আমাদের কাছের স্টেশন পালশিট সেখানে রেলের কাজ হওয়ার জন্য বহু মাটি রাস্তার উপরে পড়েছিল। গ্রামের এঁটেল মাটি রাস্তায় পড়ে পিছল হয়ে যায় এবং তাতে দুর্ঘটনা হতে থাকে।  নিজেরও গাড়ি চালাতে গিয়ে অসুবিধা বোধ করেছি।  এজন্য আমার মনে হয়েছে যে আমাদের অঞ্চলের এ কাজটি করা খুব দরকার।

 পিচের রাস্তা থেকে মাটিগুলো সরানোর কাজ আমরা গ্রামের মানুষ সম্মিলিত ভাবে  করলাম এবং আমাদের এই কাজে সাড়া দিয়েছে আমাদের অঞ্চলের অঞ্চল প্রধান এবং তিনিও বলেছেন কিছু লোক দিয়ে আমাদের এই কাজেতে সাহায্য করবেন। গ্রামের প্রবীন সদস্য নীলকন্ঠ মন্ডল বলেন আগামী দিনে এই ধরনের সামাজিক কাজ  আমরা বাজীবের নেতৃত্বে সম্মিলিত ভাবেই করতে চাই।



Post a Comment

0 Comments