চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী # ফুটবলে আর্জেন্টিনার বিশ্বজয়, ফ্রান্স কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান মেসি # জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন) এর প্রথমভাগের পরীক্ষা ২৪ জানুয়ারি থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত # বর্ধমান জেলা রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন এর শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায় #সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে # পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার # #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

শ্যামাপূজা : বন্ধ হয়ে গেল ২০০ বছরের প্রথা


 

শ্যামাপূজা : বন্ধ হয়ে গেল ২০০ বছরের প্রথা 


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : বন্ধ হয়ে গেল ২০০ বছরের প্রথা।  পূর্ব বর্ধমান জেলার খণ্ডঘোষ ব্লকের বড় গোপীনাথপুর গ্রামে শ্রী শ্রী দক্ষিণাকালী মাতার মন্দিরে শ্যামাপূজা বা কালীপূজা উপলক্ষে ছাগ বলির রীতি ছিল। সমস্ত রকম আচার রীতি মেনে পূজা হলেও এবছর থেকে বন্ধ হলো ছাগ বলি প্রথা। 

আনুমানিক ২০০ বছর আগে চ্যাটার্জী পরিবারে এই পূজা শুরু হয়। পূজাকে ঘিরে প্রতি বছর অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। কিন্তু এই বছর করোনা অতিমারি পরিস্থিতিতে কোন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে না। চ্যাটার্জী পরিবারের এক সদস্য গিরি গোবর্ধন চট্টোপাধ্যায় বলেন,

 রাতে মায়ের পূজার পর প্রতিবছরই ছাগ বলি হত মায়ের মন্দিরের সামনে। চ্যাটার্জি পরিবারের প্রতিটি সদস্য ঠিক করেন যে এই বছর থেকে পুরোপুরি বলি প্রথা বন্ধ করা হবে। সেই নিয়ে চ্যাটার্জী পরিবারের সমস্ত সদস্যদের নিয়ে বিশেষ আলোচনা হয়। পরিবারে প্রত্যেক সদস্য মত প্রকাশ করেন বলিপ্রথার বিরুদ্ধে। তাই এই বছর আর কোন বলি দেওয়া হবে না। ছাগ বলির জায়গায় কলা আখ এবং কুশ উৎসর্গ করা হয় মাকে। সাথে সাথে যে জায়গায় ছাগ বলি দেওয়া হত সেই জায়গাতেই বিশ্ব শান্তি যজ্ঞ শুরু করা হয় এই বছর  থেকে।


Post a Comment

0 Comments