চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

ব্লক তৃণমূলের বিজয়া সম্মিলনী


 

ব্লক তৃণমূলের বিজয়া সম্মিলনী 


অতনু হাজরা, জামালপুর : পূর্ব বর্ধমান জেলার  জামালপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে চকদিঘী কালীতলায় বিজয়া সম্মিলনী অনুষ্ঠান করা হলো। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের ব্লক সভাপতি মেহেমুদ খান, জামালপুরের বিধায়ক তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা যুব তৃণমূলের সভাপতি অলোক কুমার মাঝি, ব্লকের যুব সভাপতি ভুতনাথ মালিক, জেলার যুব সহ সভাপতি তথা ব্লকের জয়হিন্দ বাহিনীর সভাপতি সাহাবুদ্দিন মন্ডল, ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিট্টু মল্লিক, আই এন টি ইউ সি'র নেতা তাবারক আলী মন্ডল, ডা: প্রতাপ রক্ষিত, সাহাবুদ্দিন শেখ ও চকদিঘি অঞ্চলের নেতা আজাদ রহমান সহ বিভিন্ন পঞ্চায়েতের প্রধান, উপ প্রধান সহ পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যরা। 

ভুতনাথ মালিক তাঁর বক্তব্যে সকলকে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ভোট শেষ চার্টার বিমানের আসা যাওয়াও শেষ। কিন্তু একমাত্র মমতা বন্দোপাধ্যায় লক্ষ্মীর ভান্ডার সহ নানা প্রকল্প নিয়ে মানুষের পাশে আছেন। অলোক মাঝি প্রথমে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে তাঁকে বিধানসভা ভোটে জয়লাভ করানোর জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন এই বাংলার মাটিতে সাম্প্রদায়িক ভেদাভেদের কোনো জায়গা নেই। মুখ্যমন্ত্রী একটি একটি ফুল দিয়ে সাজি ভরিয়েছেন। যেখানে ফুল হিসাবে হিন্দু, মুসলিম, শিখ, খ্রিস্টান সকলেরই স্থান আছে। তাই এখানে সকলেই নিরাপদে থাকবেন।

 তিনি রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের কথা মানুষের সামনে তুলে ধরে আগামী লোকসভা ভোটে বাংলার অগ্নিকন্যাকে প্রধানমন্ত্রী করার ডাক দেন। মেহেমুদ খান বলেন এই বাংলায় সাম্প্রদায়িক বিভেদের কোনো জায়গাই নেই। তিনি বলেন, দল আছে তাই নেতাদের অস্তিত্ব আছে আর তাঁদের নেত্রী একজনই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর নেতা একজনই অভিষেক বন্দোপাধ্যায়। তিনি দলের কর্মীদের বলেন দলে থেকে কোনোরকম দলবিরোধী কাজ করা যাবে না।তাহলে দল ব্যবস্থা নেবে। আজকের এই বিজয়া সম্মিলনীর মঞ্চে বিজেপি ও সিপিআই থেকে শতাধিক কর্মী ও নেতৃত্ব তৃণমূলে যোগদান করেন। 

 তাঁদের হাতে তৃণমূলের দলীয় পতাকা তুলে দেন বিধায়ক অলোক কুমার মাঝি, মেহেমুদ খান ও ভুতনাথ মালিক। অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত সকলকে মিষ্টিমুখ করানো হয়। অনুষ্ঠানের শেষে মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে একটি সংগীত পরিবেশন করে এলাকারই এক কন্যা তমালিনী ব্যানার্জী।


Post a Comment

0 Comments