Scrooling

নন্দীগ্রামে বিজেপি সমর্থক খুনে রিপোর্ট চাইলো কমিশন # ১৮ তম লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল জানা যাবে ৪ জুন

বন্যা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক, পরিদর্শনে জেলা শাসক ও বিধায়ক


 

বন্যা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক, পরিদর্শনে জেলা শাসক ও বিধায়ক 


রাধামাধব মণ্ডল, সংবাদ প্রভাতী
আউশগ্রাম, ১ অক্টোবর ২০২১


পূর্ব বর্ধমান জেলার আউশগ্রাম ২  ব্লকের রামনগর অঞ্চলের বেশ কয়েকটি গ্রাম অজয়ের জলে ভাসছে। রামনগরের দেকুড়ি, পল্লীশ্রী, কুড়ুল, গোপালপুর কলোনির বিস্তৃর্ণ গ্রাম প্লাবিত। বৃহস্পতিবার রাতেই এলাকা পরিদর্শন করেছেন বিডিও আউশগ্রাম ২ এর সঙ্গে এসডিও সদর উত্তর। পুলিশ প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে রাতেই রামনগরের জলমগ্ন এলাকা থেকে স্পীড বোট নামিয়ে দুর্গত  মানুষ গুলোকে সরিয়ে আনা হয় ছোড়া কলোনির এমএসকে ও নওপাড়ার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। রামনগরের প্রধান সুকুমার আঁকুড়ে সহ এলাকার তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা আসগর সেখ, অর্ঘ্য বিশ্বাস, দেবদাস সরকাররা সারারাত ছিলেন অজয়ের বাঁধে। পল্লীশ্রী, কুড়ুল গ্রামের ৭০ টি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নষ্ট হয়েছে প্রচুর জমির ধান। ভেসে গিয়েছে ব্যবসায়ীদের ১০ টি নৌকা। রামনগরের প্রধান জানান, কয়েকটি ছাগল ও ৮ টি গরু ভেসে গেছে। বৃহস্পতিবার রাত থেকেই আউশগ্রাম ১ নং ব্লকের উক্তা পিচকুরির ফতেপুর গ্রাম, অজয়ের বন্যায় জলমগ্ন হয়ে পড়ে। তাদের দুর্যোগ মোকাবিলার বিশেষ টিম এসে উদ্ধার করে আনে। 

সারারাত অজয়ের জল বাড়লে শুক্রবার সকাল ৭ টা ২০ তে আউশগ্রাম ২ এর ভেদিয়ার সাঁতলার অজয়বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয় বিস্তৃর্ণ এলাকা। আউশগ্রামের ভেদিয়ার কিছু অংশের সঙ্গে সাঁতলা, আওগ্রাম, সুন্দলপুর, ভিটি, বৈকুণ্ঠপুর জলমগ্ন হয়ে পড়ে। ৪০ টি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বহু মানুষকে সরিয়ে এনেছে ভেদিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত ও ব্লক প্রশাসন। খোলা হয়েছে ত্রাণ শিবির। দুর্গতদের উদ্ধারের জন্য স্পীড বোট এবং টিম কাজ করছে। শুক্রবারের আউশগ্রামের  বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হলে এলাকায় আসেন পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসক  প্রিয়াংকা সিংলা। তিনি বলেন, 'কোনো ভয় নেই। প্রশাসন ও সরকার মানুষের পাশে আছে। আমরা মানুষদের সরিয়ে নিয়ে এসেছি। জল নামলে বাঁধ সারানো হবে।  আউশগ্রামের বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে এলাকায় যান আউশগ্রামের বিধায়ক অভেদানন্দ থান্দার।  তিনি বলেন, "পঞ্চায়েত গুলো রাত জেগে কাজ করেছে। কোনো রকম অসুবিধা হবে না। ত্রিপল, শুখনো খাবার দেওয়া হয়েছে। আমরা নজর রাখছি। জল কমলে বাঁধ বাঁধানো হবে। দুই আউশগ্রামই ক্ষতিগ্রস্ত। ঘরবাড়ির সঙ্গে মাঠের ক্ষতি হবে বেশি।"

এখনও উদ্বেগে রেখেছে অজয়। নতুন করে জল ছাড়ায় প্লাবিত আউশগ্রামের বিভিন্ন এলাকা। আউশগ্রাম ২ নং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সৈয়দ হায়দার আলী সহ অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে পঞ্চায়েতের প্রধান, উপপ্রধানও সদস্যরাও নেমেছেন মানুষের কাজে।