Scrooling

ঘূর্ণিঝড় রিমাল : পূর্ব বর্ধমানে ৪টি ব্লক ক্ষতিগ্রস্ত, মৃত ২ # চুরুলিয়ায় ৫ দিন ব্যাপী নজরুল স্মরণে বর্ণময় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মেলা # নন্দীগ্রামে বিজেপি সমর্থক খুনে রিপোর্ট চাইলো কমিশন # ১৮ তম লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল জানা যাবে ৪ জুন

প্রত্যন্ত গ্রামের পিছিয়ে পড়া ছেলে মেয়েদের তৈরি টি আল এমের সাহায্যে গণিত বীক্ষণাগারের উদ্বোধন


 

প্রত্যন্ত গ্রামের পিছিয়ে পড়া ছেলে মেয়েদের তৈরি টি আল এমের সাহায্যে গণিত বীক্ষণাগারের উদ্বোধন


অতনু হাজরা, জামালপুর : পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর ব্লকের গ্রাম্য অঞ্চলের একটি স্কুল হলো বনবিবিতলা উচ্চ বিদ্যালয়ে। গ্রামের এই সমস্ত বিদ্যালয় গুলিতে সাধারণত প্রথম জেনারেশনের ছেলে মেয়েরা পড়াশুনা করে। গত প্রায় দুবছর ধরে স্কুল বন্ধ। গ্রামের স্কুলগুলির বেশিরভাগ ছেলে মেয়েরাই আজ পড়াশুনা থেকে অনেক দূরে সরে গেছে। সেখানে একটু ব্যতিক্রমী ভাবনা বনবিবিতলা হাই স্কুলের। এই লকডাউন পরিস্থিতিতে বিদ্যালয়ের গণিত বিষয়ের তিন শিক্ষক পীযুষ দাস, বাবলু ঘোষ ও সঞ্জিত মন্ডল এদের প্রচেষ্টায় বাড়িতে থেকেই স্কুলের ছাত্র ছাত্রীরা গণিত বিষয়ের বিভিন্ন মডেল তৈরি করে।সেই মডেল গুলি অভিভাবকরা আসে বিদ্যালয়ে পৌঁছে দিয়ে যান। এহেন একটি গণিত বীক্ষণাগার উদ্বোধন করতে আসেন পূর্ব বর্ধমানের জেলা সহকারী পরিদর্শক সুজিত সামন্ত এবং এ আই অরুণ কুমার মন্ডল। এরই সঙ্গে তাঁরা আজ পাঁচটি স্মার্ট ক্লাস রুম ও একটি আকাওটিক চেম্বারেরও উদ্বোধন করেন। স্কুলে মিড ডে মিল নিতে আসা অভিভাবকদের হাতে মিড ডে মিলের সামগ্রীও তুলে দেন। এছাড়াও জেলা সহকারী বিদ্যালয় পরিদর্শক ছাত্র ছাত্রীদের সঙ্গে গুগল মিটে অঙ্কের প্রতি আগ্ৰহ বাড়ানোর উপর একটি ওয়েবিনার করেন বিদ্যালয় থেকে। গণিত বীক্ষণাগারে শিক্ষা সহায়ক উপকরণ তৈরির প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ছাত্র ছাত্রীদের অভিভাবকদের হাতে আধিকারিকবৃন্দ পুরস্কার তুলে দেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলের এই স্কুলের ব্যবস্থাপনা দেখে খুবই খুশি তাঁরা। তাঁরা প্রধান শিক্ষক শ্যামল কুমার রায় সহ সকল শিক্ষক শিক্ষিকাদের ধন্যবাদ জানান।