Scrooling

নন্দীগ্রামে বিজেপি সমর্থক খুনে রিপোর্ট চাইলো কমিশন # ১৮ তম লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল জানা যাবে ৪ জুন

বিজেপি শিবিরে ভাঙন ধরিয়ে শহীদ দিবস পালন জামালপুরে


 

বিজেপি শিবিরে ভাঙন ধরিয়ে শহীদ দিবস পালন জামালপুরে




অতনু হাজরা, জামালপুর : তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ মত রাজ্যের প্রতিটি জেলার প্রতিটি ব্লকের প্রতিটিগ্রামের প্রতি বুথে আজ পালন করা হলো ২১ জুলাইয়ের শহীদ দিবস। করোনা সংক্রমণের জেরে এবারেও হলোনা ধর্মতলায় সমাবেশ। সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে না পড়ে তাই দলনেত্রীর নির্দেশে এই ব্যবস্থা। দুপুর দুটোয় ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর সেই বক্তব্য প্রায় প্রতিটি ব্লকের ব্লক পার্টি অফিসের পক্ষ থেকে দেখানো হয় জায়েন্ট স্কিনের মাধ্যমে। সকাল থেকেই পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরে প্রত্যেকটি গ্রামের প্রতিটি বুথে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয় ও শহীদ বেদীতে মাল্যদান করে শহীদের শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করা হয়।


 বিধায়ক অলক কুমার মাঝি, তৃণমূল কংগ্রেসের জামালপুর ব্লক যুব সভাপতি ভুতনাথ মালিক, সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি তাবারক আলী মন্ডল ও মহিলানেত্রী মিঠু মাঝি ব্লকের বিভিন্ন অঞ্চলে পৌঁছে গিয়ে শহীদ বেদীতে মাল্যদান ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে বক্তব্য রাখেন। পরে দুপুর ২টোর সময় ব্লক পার্টি অফিসে সমবেত হন বিধায়ক অলক কুমার মাঝি, তৃণমূল কংগ্রেসের জামালপুর ব্লক সভাপতি মেহেমুদ খান, যুব সভাপতি ভুতনাথ মালিক, মহিলানেত্রী মিঠু মাঝি, জয়হিন্দ বাহিনীর সভাপতি সাহাবুদ্দিন মন্ডল, সংখ্যালঘুসেলের সভাপতি তাবারক আলী মন্ডল সহ সাহাবুদ্দিন শেখ, ডা: প্রতাপ রক্ষিত সহ অন্যান্য নেতৃত্ব ও দলের কর্মী-সমর্থকেরা। জামালপুর ব্লকে আজকের ২১ শে জুলাইয়ের অনুষ্ঠান স্মরণীয় হয়ে থাকবে। কারণ আজই জামালপুরে বিজেপি-তে একটি বড়সড় ফাটল ধরিয়ে জামালপুর ২ অঞ্চল ও বেরুগ্রাম অঞ্চল ও অন্যান্য জায়গা থেকে প্রায় ১৫০০ বিজেপি কর্মী সমর্থক বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেন। 



তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন বিধায়ক, দলের ব্লক সভাপতি, যুব সভাপতি সহ অন্যান্যরা। তৃণমূলে যোগদান করে তারা স্বীকার করে নেয় ভোটের আগে বিশেষ প্রলোভনে পড়ে তারা বিজেপিতে যোগদান করেছিল। কিন্তু বর্তমানে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে তৃণমূলের উন্নয়নে তারাও সামিল হতে চান তাই পুনরায় আবার তৃণমূল কংগ্রেসেই ফিরে এলেন। বিধায়ক অলক কুমার মাঝি জানান, মানুষ জানে যে রাজ্যের প্রকৃত উন্নয়ন কাকে দিয়ে সম্ভব তাই তৃতীয়বারের জন্য মানুষই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রী পদে বসিয়েছেন। তিনি জানান, দিদি আজই নির্দেশ দিয়েছেন চেয়ার বড় নয় মানুষই বড় তাই সৎভাবে মানুষের সেবা করতে হবে। যে পরিবর্তন বাংলায় ঘটেছে আগামী ২০২৪ সালে সেই পরিবর্তন দেশে আসবে বাঙালি প্রধানমন্ত্রীকে দেখবে দেশবাসী।জামালপুরের মানুষ তাঁকে নির্বাচিত করায় তিনি তাঁদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। মেহেমুদ খান এবারের বিধাসভা ভোটে জামালপুর থেকে অলক মাঝিকে জিতিয়ে বিধায়ক করার জন্য সকল আপামর জামালপুরবাসীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি বলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যে উন্নয়ন করেছেন বিগত দিনে তাই মানুষ তাঁকে দুহাত তুলে আশীর্বাদ করেছেন। তিনি জানান, আজ যাঁরা বিজেপি থেকে তৃণমূলে এলেন তাদের সকলকেই স্বাগত। মুখ্যমন্ত্রী আজ নিজেকে যে জায়গায় নিয়ে গেছেন তাই আজ তিনি দেশে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার অন্যতম দাবিদার। আর তাঁরা সকলেই বাঙালি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দেখতে চান। ভুতনাথ মালিক জানান, বিজেপি গোটা দেশের নেতা নেত্রীদের এনেও কিছুই করতে পারেনি। মুখ্যমন্ত্রীর জনপ্রিয়তার ধারে কাছে কেউ নেই। তিনি তাঁর কাজের মাধ্যমেই মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। তিনিও বলেন আগামী লোকসভা নির্বাচনের পর বাঙালি প্রধানমন্ত্রীই দেখতে চান। আজকে জামালপুরে বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগদান আগামীতে আরো হবে বলে তিনি জানান। অনুষ্ঠানের শেষে আগত সকল কর্মী সমর্থকদের হাতে একটি করে গাছের চারা তুলে দেন বিধায়ক অলক কুমার মাঝি সহ অন্যান্যরা।