চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও স্মারকলিপি



বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও স্মারকলিপি



 কাজল মিত্র, আসানসোল : বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ আন্দোলনে সামিল দলীয় নেতৃত্ব। বুধবার বিজেপির পক্ষ থেকে পশ্চিম বর্ধমানের জেলা শাসকের অফিসের সামনে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবি তুলে বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি জেলা শাসকের কাছে স্মারকলিপিও জমা দেয়। এদিনের কর্মসূচিতে ছিলেন বিজেপি'র জেলা সভাপতি শিবরাম বর্মন, কুলটির বিধায়ক অজয় পোদ্দার, বারাবনির বিজেপি যুব মোর্চার সাধারণ সম্পাদক অরিজিৎ রায়, লক্ষন ঘরুই সহ অনেকে।


 শিবরাম বর্মন জানান, "গত ২ মে বিধানসভা ভোটের ফলাফল প্রকাশ হবার পরেই সারা রাজ্য জুড়ে যে সন্ত্রাস শুরু হয়েছে তার বাইরে আসানসোলও বাদ পড়েনি। পাঁচ রাজ্যে ভোট হয়েছিল কিন্তু কোথাও কিছু সন্ত্রাস হয়নি। কেবল মাত্র পশ্চিমবঙ্গে এই সন্ত্রাস হচ্ছে। আর পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ তৃণমূলের তাঁবেদারি করছে। বহু বিজেপি নেতা কর্মী বাড়ি ছাড়া। ভোটের ফলাফল হবার পরেই তৃণমূলের কর্মীরা বিজেপির কর্মীদের মারধোর করে এবং মহিলাদের উপর অত্যাচার চালায়। যারফলে বহু বিজিপি কর্মী এখনো ঘর ছাড়া। বিজেপি নেতা-কর্মীদের অনেকেই আহত হয়েছেন। বহুকর্মী কাজহারা না খেয়ে অনাহারে দিন যাপন করছে। ভয়ে তারা বাড়ী আসতে পারছেনা। তৃণমূলের তরফে বলাহচ্ছে তাদের বাড়ি ফিরিয়ে আনা হচ্ছে কিন্তু বাড়িতে ডেকে পুনরায় তাদের মারধোরের ভয় দেখানো হচ্ছে"। তিনি আরও বলেন, "এর আগেও আমরা জেলাশাসকের অফিসে জানিয়েছিলাম কিন্তু এখনো কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি দোষীদের বিরুদ্ধে। তাই পুনরায় আমরা জেলাশাসকের কাছে লিখিত ভাবে জানিয়ে গেলাম, ব্যবস্থা না নিলে বড় আন্দোলন হবে।" পশ্চিম বর্ধমানের জেলাশাসক বিভূ গোয়েল সমস্ত ঘটনার তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজেপি নেতৃত্ব।

তৃণমূলের তরফে জানানো হয় যে তারা কেবলমাত্র মিডিয়ার সামনে আসার জন্য এসব করে বেড়াচ্ছে। আসলে তাদের আর কোন অস্তিত্ব রাজ্যে টিকবেনা তাই তারা এসব করে অশান্তির পরিবেশ তৈরি করতে চাইছে। বিজেপিকে এভাবেই কটাক্ষ করে তৃণমূলের জেলা সভাপতি শিবদাসন দাসু বলেন, "বাবুল সুপ্রিয় মহাশয়কে সবাই পরিয়াযী সাংসদ বলে। ভোটের আগে এলাকায় আসেন।ভোট ফুরোলে পালিয়ে যান। উনি নিজেও জানেন, এলাকায় তাঁর দলের নেতারা মিথ্যা অভিযোগ তুলে অশান্তি পাকাচ্ছে।"




Post a Comment

0 Comments