চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

সবুজ সাথীর ১২০০ সাইকেল খোলা আকাশের নিচে রোদে জলে নষ্ট হচ্ছে


 

সবুজ সাথীর ১২০০ সাইকেল খোলা আকাশের নিচে রোদে জলে নষ্ট হচ্ছে



কাজল মিত্র, সালানপুর : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের প্রকল্প গুলির মধ্যে একটি সবুজ সাথী প্রকল্প। এই প্রকল্পে বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের বিনামূল্যে সাইকেল প্রদান করা হয়। ছাত্র-ছাত্রীদের বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ে যাতায়াতের সুবিধার জন্যই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এধরনের একটি মানবিক প্রকল্প চালু করেছেন। অথচ এই প্রকল্পের সাইকেল খোলা আকাশের নিচে রোদে জলে নষ্ট হওয়ার পথে। এমনই ঘটনা সালানপুর ব্লকের আছড়া পঞ্চায়েতের আছড়া যজ্ঞেশ্বর ইনস্টিটিউটে ( উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়)। এখানে খােলা আকাশের নীচে রােদে জলে পড়ে পড়ে নষ্ট হচ্ছে সবুজ সাথীর ১২০০ সাইকেল।


জানা যায় প্রায় পাঁচ মাস ধরে সাইকেল গুলি একই অবস্থায় পড়ে রয়েছে স্কুলে। খােলা আকাশের নিচে সাইকেলগুলি রাখা আছে।ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম দিকে সাইকেল গুলি দেওয়ার কথা থাকলেও ভোট আর করোনার বাড়বাড়ন্ত দেখে সেগুলি ছাত্রদের আর দেওয়া হয়নি। তবে সাইকেল গুলি দেওয়া নাহলেও সেগুলি সুরক্ষিত স্থানে রাখার কোন বন্দোবস্তই করা হয়নি। যার ফলে ১২০০ সাইকেল রোদে ও বৃষ্টিতে পড়ে রয়েছে। সেগুলির উপরে কোন আচ্ছাদনের ব্যবস্থা করা হয়নি। প্রায় পাঁচ মাস এইভাবে ফাঁকায় সাইকেলগুলি পড়ে থাকার ফলে নিঃসন্দেহে সেগুলি অনেকটাই অকেজো হয়ে গেছে। কিন্তু কেন এগুলি পড়ুয়াদের হাতে তুলে দেওয়া হলাে বা কেন এগুলাের উপরে কোন আচ্ছাদন দেওয়া হলাে না অথবা সাইকেলগুলিকে কোন বড় হলঘরে বা ক্লাস রুমের ভেতরে ঢুকিয়ে রাখা হলাে না সেই প্রশ্নে স্কুলের প্রধান শিক্ষক নিখিল দত্ত বলেন ব্লক প্রসাশনের নির্দেশে সালানপুর ব্লকের সমস্ত স্কুলের সাইকেল গুলি আমাদের আছড়া স্কুলে রাখা হয়েছে। সবুজ সাথী  সাইকেল গুলি নবম শ্রেণীর পড়ুয়াদের দেওয়ার জন্য রাখা আছে। তবে সাইকেল গুলি খোলা আকাশের নিচে রাখা হয়েছে এর যাবতীয় দায়দায়িত্ব ব্লক প্রশাসনের।


তবে সাইকেলগুলি রােদে জলে নষ্ট হচ্ছে সে কথা কি তিনি প্রশাসনকে জানিয়েছিলেন ? এবিষয়ে সালানপুর ব্লক আধিকারিক অদিতি বসু বলেন, তিনি এবিষয়ে জানতেন না তবে খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান। সাইকেলগুলি যাতে দ্রুত স্কুল পড়ুয়াদের হাতে তুলে দেওয়া যায় সে দিকটিও তিনি দেখছেন। এ প্রসঙ্গে আছড়া পঞ্চায়েত উপপ্রধান হরেরাম তেওয়ারী বলেন, বিষয়টি জানা মাত্রই তিনি স্কুল কমিটি সহ সংশ্লিষ্ট সমস্ত বিভাগের সঙ্গে যােগাযােগ করেছেন। তাছাড়া সাইকেলগুলি ত্রিপল দিয়ে যাতে ঢাকা দেওয়া যায় সেই ব্যবস্থা করছেন।




Post a Comment

0 Comments