চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

পূর্ব বর্ধমানে জাতীয় তপশীলি কমিশনের চেয়ারম্যান ও প্রতিনিধি দল



পূর্ব বর্ধমানে জাতীয় তপশীলি কমিশনের চেয়ারম্যান ও প্রতিনিধি দল


অতনু হাজরা, জামালপুর : পশ্চিমবঙ্গে দলিত সম্প্রদায়ের উপর সন্ত্রাস চলছে এই অভিযোগের ভিত্তিতে দুদিনের রাজ্য সফরে এসেছেন জাতীয় তপশীলি কমিশনের চেয়ারম্যান বিজয় সাম্পলা সহ এক প্রতিনিধি দল। প্রতিনিধি দলে রয়েছেন জাতীয় তপশীলি কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান অরুণ হালদার। আজ তাঁরা পূর্ব বর্ধমান জেলার দুটি এলাকা পরিদর্শন করেন। আগামীকাল দক্ষিণ চব্বিশ পরগনায় যাবেন। নির্দিষ্ট সূচি অনুযায়ী আজ প্রথমে জাতীয় তপশীলি কমিশনের প্রতিনিধি দল পূর্ব বর্ধমান জেলার জামালপুর ব্লকের নবগ্রামে বিজেপি শক্তিকেন্দ্র প্রমুখের বাড়িতে যান। ভোটের গণনার পরদিনই রাজনৈতিক হিংসায় মৃত্যু হয়েছে কাকলি ক্ষেত্রপালের। বৃহস্পতিবার সেই পরিবারের সাথে কথা বলার জন্যই আসেন। তাঁকে অভ্যর্থনার জন্য উপস্থিত ছিলেন পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসক প্রিয়াঙ্কা সিংলা, পুলিশ সুপার কামনাশীষ সেন, এসডিপিও আমিনুল ইসলাম, সি আই শ্যামল চক্রবর্তী, জামালপুর ব্লকের বি ডি ও শুভঙ্কর মজুমদার, জামালপুর থানার অফিসার ইন চার্জ মিঠুন কুমার ঘোষ সহ অন্যান্যরা। 




এলাকায় মোতায়েন ছিল বিশাল পুলিশ বাহিনী। তপশীলি কমিশনের চেয়ারম্যান আধিকারিকদের সাথে কথা বলে কাকলি ক্ষেত্রপালের বাড়িতে যান। যদিও বাড়িতে কেউই ছিলেন না। তিনি অভিযোগ জানান এখানে একটা ভয়ের পরিবেশ করে রাখা হয়েছে। এখান থেকে তাঁরা চলে যান বর্ধমানে। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় ওই গ্রামেই আরও একজন তপশীলি যিনি তৃণমূল কর্মী বিভাস বাগ তাঁর বাড়িতে গিয়ে বাড়ির লোকের সাথে দেখা করা থেকে বিরত থাকলেন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যেখানে রাজনৈতিক হিংসায় মৃত সকল মানুষ সে যে দলেরই লোক হোক না কেন তাঁকে ২ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেবার ঘোষণা করে রাজধর্ম পালন করেছেন। 




সেখানে জাতীয় কমিশনের প্রতিনিধি দল তৃণমূল কর্মীর বাড়ি যাওয়া থেকে বিরত থাকলেন। এর মধ্য দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে রাজনীতির অভিযোগ করেন বিজেপির বিরুদ্ধে আজ কেন্দ্রীয় টিম তাতেই সিলমোহর মেরে গেলেন।





Post a Comment

0 Comments