চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

শতবর্ষে বর্ধমান ডিস্ট্রিক্ট রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন # উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

বিদ্যালয়ে স্বাস্থ্য শিবির ও সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান


 

বিদ্যালয়ে স্বাস্থ্য শিবির ও সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : আউসগ্রাম ১, ব্লকের কয়রাপুর বিদ্যাসাগর বিদ্যাপীঠে একটি স্বাস্থ্য শিবিরের আয়োজন করা হয়। একই সঙ্গে শনিবার বিদ্যালয়ের কন্যাশ্রী ক্লাবের পক্ষ থেকে আরও একটি স্বাস্থ্য সচেতনতা বিষয়ক অনুষ্ঠান হয়।স্বাস্থ্য শিবির মূলত বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীরা এবং ছাত্র-ছাত্রীর অভিভাবক অভিভাবিকা ও এলাকার প্রতিবেশীরাই অংশগ্রহণ করেছেন। মোট ৬০ জন রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা এবং বিনামূল্যে ওষুধ পত্র বিতরণ করা হয়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিদ্যালয়ের পাশে যে ইট ভাটা আছে, সেখানে বাইরে থেকে আসা শ্রমিকদেরও এদিনের স্বাস্থ্য শিবিরে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। এবং বিনা পয়সায় ঔষধ বিতরণ করা হয়।এমন কি রাস্তা নির্মাণের কাজে যুক্ত শ্রমিকদের বিদ্যালয় থেকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া হয় ।বিদ্যালয় কেবলমাত্র বিদ্যা দানের ক্ষেত্র নয়, তার একটি সামাজিক কর্তব্য পালনের জায়গাও আছে ।কয়রাপুর বিদ্যাসাগর বিদ্যাপীঠ সেই কর্তব্য পালনে সদা সর্বদা ব্রতী হয়ে থাকে। একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সৌজন্যে, এই স্বাস্থ্য শিবির অনুষ্ঠিত হয়।




 স্বাস্থ্য শিবির উপস্থিত ছিলেন ডাঃ মিঠু রানা এবং রুকমান আক্তার।এছাড়াও বিদ্যালয়ের কন্যাশ্রী ক্লাবের পক্ষ থেকে দায়িত্ব প্রাপ্ত শিক্ষিকা মিতা সাহা এদিন বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের হাতে এবং ইটভাটার মহিলা শ্রমিক দের হাতে বিনামূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন তুলে দেন। উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের বিশিষ্ট শিক্ষিকা অসীমা থান্ডার, নিবেদিতা কোলে ও শুক্লা সিনহা। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হিন্দুর ঘোষ ও সালেহা খাতুন। অতিমারি আবহে বিদ্যালয়ের স্বাভাবিক ছন্দ পতন ঘটলেও ছাত্রীদের মধ্যে এবং মহিলা শ্রমিকদের মধ্যে স্বাস্থ্যসচেতনতার পাঠ দেওয়া হয়। এ ব্যাপারে ব্লকের বননবগ্রাম হাসপাতাল থেকে বিদ্যালয় প্রভূত সাহায্য পেয়েছে।




 রাস্তায় যেতে যেতে অথবা মহিলা শ্রমিকদের কাজ করতে করতে শারীরিক সমস্যা হলে, এই সামান্য সাহায্য তাদের কাজে আসবে বলেই বিদ্যালয় মনে করে। বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক শিক্ষিকার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এবং স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার কর্ণধার জয়দেব দাস ও সঞ্জয় দাস সক্রিয় সহযোগিতায় সুষ্ঠুভাবে এবং সফলভাবে আজকের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং পরিচালন সমিতি এই জন্য সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।



Post a Comment

0 Comments