চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী # ফুটবলে আর্জেন্টিনার বিশ্বজয়, ফ্রান্স কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান মেসি # জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন) এর প্রথমভাগের পরীক্ষা ২৪ জানুয়ারি থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত # বর্ধমান জেলা রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন এর শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায় #সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে # পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার # #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

বর্ধমানের ক্রিকেট এবং ফুটবল খেলায় একটি উল্লেখযোগ্য নাম তুষার ঘোষ


 

বর্ধমানের ক্রিকেট এবং ফুটবল খেলায় একটি উল্লেখযোগ্য নাম তুষার ঘোষ



🟣 অপূর্ব দাস



 ➡️ খেলার মাঠে আসা নতুন ছেলেদের মধ্যে কার ব্যাটে রান আছে আর কার বলে ধার আছে তা অল্প সময়ে বুঝতে পারতেন তুষার ঘোষ। তারপর শুরু হতো সেই তরুন ক্রিকেটারকে চৌখস ব্যাটসম্যান বা বোলার হিসেবে তুলে ধরার প্রশিক্ষন। এভাবে বর্ধমানের খেলার মাঠে তিনি তৈরী করেছেন বহু কৃতি ক্রিকেটার। 

       তার কাছে যারা খেলা শিখেছেন তারা কোচ হিসেবে তুষার ঘোষ এর কথা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।  "খেলোয়াড় জীবনের কথা যখন মনে পড়ে, যখন মনে আসে নিজের ক্রিকেট খেলার কথা, তখনই তুষারদার কথা ভাবনায় চলে আসে। আমার মতো অনেককেই তিনি ক্রিকেট খেলা শিখিয়েছেন।" প্রয়াত ক্রীড়াবিদ তুষার ঘোষ সম্পর্কে এই কথাগুলো বলেন প্রাক্তন ক্রিকেটার  অতনু পুততুন্ড ওরফে পিন্টু।

       ছোট বেলায় খেলাধূলা শুরু ফুটবল মাঠে। ভালো ফুটবল খেলার জন্য তুষার ঘোষ অনেক ক্লাব থেকে ডাক পেতে থাকেন । পুরোদমে ফুটবল খেলার পাশাপাশি ক্রিকেট খেলাতেও তার ছিল আগ্রহ। বর্ধমান রাজ কলেজের হয়ে ক্রিকেট খেলে পারদর্শীতার পরিচয় দেন। আনুমানিক ১৯৬০ সাল নাগাদ রাজ কলেজের হয়ে ক্রিকেট খেলেন তুষার ঘোষ ওরফে নান। সেই সময়ের কৃতি ক্রিকেটার সত্যেন কর-কে নিজের ক্রিকেট শিক্ষার গুরু হিসেবে তিনি মানতেন। তিনি রাজ কলেজের হয়ে ক্রিকেট ও ফুটবল দুটোতেই বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় খেলেন। ফুটবলার এবং ক্রিকেটার হিসেবে অতন্ত পরিচিত ছিলেন তুষার ঘোষ। পরবর্তী সময়ে ক্রিকেট প্রশিক্ষক হিসাবেও ওনার নাম ক্রীড়া মহলে ছড়িয়ে পড়ে। 

      সাব জুনিয়র, জুনিয়র ও সিনিয়র স্তরে বর্ধমান জেলা দলের হয়ে বিভিন্ন ফুটবল প্রতিযোগিতায় প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তুষার ঘোষ কলকাতা ময়দানে এরিয়ান, খিদিরপুর ক্লাবে খেলেছেন। খেলোয়াড় হিসাবে তিনি দুর্গাপুর অ্যালয় স্টিল প্ল্যান্টে চাকরি পান।  

      ক্রিকেটার হিসেবেও তিনি সফল। প্রায় কুড়ি বছর জেলা ক্রিকেট দলের হয়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ওয়েস্ট বর্ধমান এ্যাথলেটিক ক্লাব ও শিবাজি সংঘের হয়ে তুষার ঘোষ সাফল্যের সঙ্গে খেলেছেন। দুর্গাপুর এ্যালয় স্টিলের হয়ে ক্রিকেট এবং ফুটবল জাতীয় স্তরের প্রতিযোগিতায় তিনি খেলেছেন। 

      বর্ধমানের সব ক্রিকেট মাঠে একসময় তুষারদাকে দেখা যেত। নতুন ক্রিকেট প্রতিভার সন্ধানে ঘুরতেন এক মাঠ থেকে আরেক মাঠে। যেখান থেকে ডাক পেতেন সেখানেই উপস্থিত হতেন প্রতিশ্রুতিমান ছেলেদের ক্রিকেট খেলা শেখাতে। মিঠাপুকুর এ্যাথলেটিক ক্লাবের ক্রিকেট কোচ ছিলেন বেশ কয়েক বছর। শোনা যায়, তুষার ঘোষ তার টিমের ক্রিকেটারদের  খেলার সময় ভালো পারফিউম ব্যবহার করতে বলতেন। পারফিউম ব্যবহার করে তরতাজা মন নিয়ে ছেলেদের মাঠে নামতে বলতেন।

      স্বাভাবিক ছন্দে ফুটবল ও ক্রিকেট খেলতেন তুষার ঘোষ। কিন্তু তার মৃত্যু স্বাভাবিক ভাবে হয়নি। ২০১৭ সালে তার মৃত্যু হয়।

Post a Comment

0 Comments