চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী # ফুটবলে আর্জেন্টিনার বিশ্বজয়, ফ্রান্স কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান মেসি # জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন) এর প্রথমভাগের পরীক্ষা ২৪ জানুয়ারি থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত # বর্ধমান জেলা রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন এর শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায় #সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে # পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার # #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

প্রধান শিক্ষকের গাফিলতিতে ছাত্র-ছাত্রীরা ১০ হাজার থেকে বঞ্চিত হওয়ার পথে, বিডিও'র কাছে স্মারকলিপি


 

প্রধান শিক্ষকের গাফিলতিতে ছাত্র-ছাত্রীরা ১০ হাজার থেকে বঞ্চিত হওয়ার পথে, বিডিও'র কাছে স্মারকলিপি


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সোচ্চার দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরা। পূর্ব বর্ধমান জেলার জামালপুরের পাঁচড়া হাই স্কুলের ঘটনা। বিক্ষুব্ধ ছাত্র-ছাত্রীরা মঙ্গলবার প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে জামালপুর ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক শুভঙ্কর মজুমদারের কাছে স্মারকলিপি জমা দিল। খুব সম্প্রতি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের সমস্ত উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের অন লাইনে পড়াশুনার জন্য তাদের ট্যাব কিনতে প্রত্যেকের এ্যাকাউন্টে ১০০০০ টাকা দেবার কথা ঘোষণা করেছেন। সেই প্রেক্ষিতে সব স্কুলেই চলছে প্রত্যেক ছাত্র ছাত্রীদের এ্যাকাউন্ট নাম্বার জমা নিয়ে তা সঠিক জায়গায় পাঠাবার ব্যবস্থা করা। জামালপুর ব্লকের অন্যান্য স্কুল সেই কাজ করলেও পাঁচড়া স্কুলে সেই কাজ অসমাপ্ত রয়েছে। ছাত্র ছাত্রীরা বিডিও শুভঙ্কর মজুমদারের কাছে লিখিত অভিযোগে জানিয়েছে প্রধান শিক্ষককে ফোন করলে তিনি ধরেন না। কবে কাগজ পত্র জমা নেবেন সে সম্পর্কেও কোনো কথা জানান না। তারা বা অভিভাবকরা ফোন করলে ফোন সুইচ অফ রাখেন। অথচ ছাত্র ছাত্রীরা আশঙ্কা করছে নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে গেলে তারা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে সুযোগ তাদের জন্য দিয়েছেন তা থেকে তারা বঞ্চিত থাকবে। সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক যেন সে বিষয়টা দেখে তারা যেন বঞ্চিত না হয় সে ব্যবস্থা করে দেন।




 বিডিও শুভঙ্কর মজুমদার জানান, ছাত্র ছাত্রীদের অভিযোগ তিনি পেয়েছেন। তিনি সাথে সাথে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের এস আই-কে বিষয়টি জানিয়েছেন। তিনি আবার ঘটনাটি জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শকের নজরে এনেছেন। নিশ্চয়ই ছাত্র-ছাত্রীদের যাতে টাকা পেতে কোনো অসুবিধা না হয় তা দেখা হবে। একই সঙ্গে তিনি আরো বলেন, এই বিষয়টি নিয়ে তিনি তাঁর উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে অবশ্যই কথা বলবেন বা বিষয়টি জানাবেন।

পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খান জানান, আজ ব্লক অফিসে এসে ছাত্র-ছাত্রীরা অভিযোগ জানিয়েছে। তিনি বিডিও সাহেবের সাথে কথা বলে দ্রুত যাতে ছেলে-মেয়েরা টাকা পায় তার ব্যবস্থা করার চেষ্টা করবেন। রাজ্য সরকার যেখানে বছাত্র ছাত্রীদের সরাসরি সাহায্য করছেন সেখানে স্কুলের গাফিলতি করাটা মোটেই ঠিক নয়। এবিষয়ে তিনি খোঁজ নেবেন বলেও জানান।

Post a Comment

0 Comments