Scrooling

নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রীসভায় পশ্চিমবঙ্গ থেকে শপথ নিলেন ডঃ সুকান্ত মজুমদার ও শান্তনু ঠাকুর # অ্যালার্জিজনিত সমস্যায় ভুগছেন ? বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডাঃ অয়ন শিকদার আগামী ২১ জুলাই বর্ধমানে আসছেন। নাম লেখাতে যোগাযোগ 9734548484 অথবা 9434360442 # আঠারো তম লোকসভা ভোটের ফলাফল : মোট আসন ৫৪৩টি। NDA - 292, INDIA - 234, Others : 17 # পশ্চিমবঙ্গে ভোটের ফলাফল : তৃণমূল কংগ্রেস - ২৯, বিজেপি - ১২, কংগ্রেস - ১

পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের সদস্যরা মইদুল ইসলামের নেতৃত্বে সোচ্চার, ১১ জানুয়ারি নবান্ন অভিযানের প্রস্তুতি


 

পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের সদস্যরা মইদুল ইসলামের নেতৃত্বে সোচ্চার, ১১ জানুয়ারি নবান্ন অভিযানের প্রস্তুতি



অতনু হাজরা, বর্ধমান : পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ বড়সড় নবান্ন অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মইদুল ইসলামের নেতৃত্বে এই আন্দোলন সংগঠিত হচ্ছে। জেলায় জেলায় চলছে ডেপুটেশন পর্ব। বুধবার ডেপুটেশনকে কেন্দ্র করে পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসকের অফিসের সামনে ধুন্ধুমার কান্ড ঘটে। শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের সদস্যরা বিভিন্ন দাবিতে ডেপুটেশন দিতে আসে। সেই সময় পুলিশ প্রশাসন তাদের বাধা দিতে গেলে তাঁরা অফিস চত্বরের গেট ঠেলে ভিতরে ঢুকে যায়। সামনের সারিতে থাকা শিক্ষিকারা বলেন তাঁরা দুষ্কৃতী নন। সমাজ গড়ার কারিগর। কিন্তু বহুদিন ধরে তাঁরা চরম বঞ্চনার শিকার। জেলা শাসকের কাছে তাদের দাবিপত্র দিতেই এসেছেন। তাঁরা মইদুল ইসলামের নেতৃত্বে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে সামিল হয়েছেন।



 সারা রাজ্য জুড়ে প্রতিটি জেলায় জেলায় জেলা শাসকের কাছে ডেপুটেশন দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ। প্রসঙ্গত রাজ্যের প্যারা টিচার, এস এস কে, এম এস কে টিচার, শিক্ষা বন্ধু, স্পেশাল এডুকেটর, কম্পিউটার শিক্ষক, বৃত্তিমূলক শিক্ষক সহ অনেক শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীদের সংগঠন যুক্ত হয়ে তৈরি হয়েছে শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ। আজ তাদের পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসকের কাছে ডেপুটেশন দেবার কর্মসূচি ছিল। শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক মইদুল ইসলাম জানান জেলা শাসক না থাকায় তাদের ডেপুটেশন নিতে অস্বীকার করা হয়। তখন তাঁর নেতৃত্বে অফিস প্রাঙ্গনেই অবস্থান করে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকরা বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। পরে অবশ্য অতিরিক্ত জেলা শাসক তাঁদের ডেপুটেশন নেবেন বলে জানন। তিনি আরো জানান আগামী ৫ জানুয়ারি তাঁদের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বৈঠক করতে পারেন সেই মর্মেই খবর পেয়েছেন তাঁরা। তাদের দাবি মূলতঃ সম কাজে সম বেতন, অবসরকালীন সুযোগ সুবিধা ও সকলেই যাতে পেনশন পান। এই দাবি মানা নাহলে আগামী ১১ই জানুয়ারি নির্ধারিত দিনে তাঁদের নবান্ন অভিযান যে কর্মসূচি আছে তা তাঁরা করবেনই এবং লক্ষাধিক শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষাকর্মীরা যোগদান করবেন বলে তিনি জানান।এ ছাড়াও পার্শ্ব শিক্ষকদের জন্য তাঁদের দাবি বেতন কাঠামো। আজকের ডেপুটেশন উপলক্ষে বর্ধমান স্টেশন থেকে মিছিল করে কার্জনগেট হয়ে জেলা শাসকের অফিসে আসেন তাঁরা। এদিনের মিছিলে প্রচুর সংখ্যক শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষাকর্মী অংশ গ্রহন করেছিলেন।