চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

অবৈধ বালিঘাট নিয়ে দ্বন্দ্ব, অশান্তি রুখতে জেলা ভূমি দপ্তরে তৃণমূল সভাপতির আবেদন


 

অবৈধ বালিঘাট নিয়ে দ্বন্দ্ব, অশান্তি রুখতে জেলা ভূমি দপ্তরে তৃণমূল সভাপতির আবেদন


নিজস্ব সংবাদদাতা, আউশগ্রাম : বীরভূমের ইতাপুর মৌজার বালি ঘাটের সরকারি ইজারা ধানবাদ নিবাসী প্রকাশ কুমার মণ্ডলের নামে। অভিযোগ সেই ইজারাদারের নাম ভাঙ্গিয়ে অজয় নদের ঘাট থেকে অবৈধ ভাবে বালি তুলছে। অভিযুক্ত ঠিকাদারের নাম নরোত্তম মণ্ডল। বাড়ি আউশগ্রাম ২ ব্লকের রামনগরের ডাঙাপাড়া গ্রামে। স্থানীয়সুত্রে খবর তিনি ওই গ্রামের একজন সিপিআইএম নেতা। তাঁকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, "আমার নামে কোনো কাগজ নেই ঠিকই। তবে আমি দীর্ঘ দিন ধরে বর্ধমান অংশের অজয় বালিঘাটের অংশটা দখল করে আসছি। গোপনে ঘাটটি আমাকে না বিক্রি করে, অন্যদের বিক্রি করে দিয়েছে। যদিও স্থানীয়সুত্রে খবর হরিনাথপুর মৌজা ও বীরভূমের ইটাপুর মৌজার একটি বড় অংশ জুড়ে বালি তুলছে অবৈধ ভাবে নরোত্তম মণ্ডল। এদিকে অভিযোগের আঙুলও তাঁর দিকেই। 




আউশগ্রামের রামনগর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার পাথরকুচি ডাঙাপাড়ার বর্তমান পঞ্চায়েত সদস্য অরুণ গড়াইয়ের অভিযোগ, "অজয়ের ঘাট থেকে গায়ের জোড়ে, কোনো রকম অনুমতিপত্র ছাড়াই অবৈধ ভাবে বালি তুলছে নরোত্তম মণ্ডল। সে কিছু লোককে মদ মাংস খাইয়ে হাত করে, হামলা করতে চাইছে। প্রশাসনকে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছি বলেও তার দাবী। তিনি আরও জানান সে সিপিএম নেতা, বর্তমানে বিজেপির সমর্থক।"

যদিও অভিযোগকারি সরকারি ভাবে বালিঘাটের বর্তমান ইজারাদার সেখ আবজল রহমানের দাবি, "সরকারের কাছ থেকে ইটাপুর মৌজার, জে এল নং ১২৫ অংশের পরিমান ৫ একর ৪২ শতক জায়গার নদী গহ্বরে বালি কাটার ইজারাদার প্রকাশ কুমার মণ্ডলের থেকে আমি ও ভীষ্মদেব মণ্ডলের নামে কিনেছি। তারপরও দখল করে, কিছু লোককে টাকা দিয়ে প্রতিদিনই অশান্তি করতে পাঠাচ্ছে স্থানীয় নরোত্তম মন্ডল। বিষয়টি প্রশাসনকে জানিয়েছি।"




বালিঘাটের আরও এক ঠিকাদার ভীষ্মদেব ওরফে সাহেব মণ্ডলের অবিযোগ,"নরোত্তম মণ্ডল লোকজনকে পয়সা খাইয়ে, একবার ঘাটে আমাকে, আমার বাবাকে মারধোর করেছিল। আমি স্থানীয় না হওয়ার কারণে কোনো কিছু করতে পারিনি। এখন পাটনার পেয়েছি, তবুও এমন আচরণ করছে। প্রশাসনকে জানিয়েছি তবে পুলিশের এক ডাক পার্টি সাহায্য করছে নরোত্তম মণ্ডলকে।"

এবিষয়ে জানতে আউশগ্রাম ২ ব্লকের বিএলআরও - কে ফোন করা হলে তাঁকে ফোনে পাওয়া যায়নি।



যদিও এই অবৈধ বালিঘাটকে কেন্দ্র করে অশান্তি হওয়ার আশঙ্কায় তৃণমূল কংগ্রেসের আউশগ্রাম ২ ব্লকের কার্যকরি সভাপতি সেখ আব্দুল লালন অবৈধ বালিঘাটটিকে বন্ধ করার জন্য ই-মেইলে আগাম আবেদন জানিয়েছেন জেলা ভূমি দপ্তরে।