চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

শতবর্ষে বর্ধমান ডিস্ট্রিক্ট রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন # উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

শারীরিক সুস্থতায় ভিটামিন সমৃদ্ধ পুষ্টিগুণে ভরপুর লাল শাক


 

শারীরিক সুস্থতায় ভিটামিন সমৃদ্ধ পুষ্টিগুণে ভরপুর লাল শাক


ডিজিটাল ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : শাকের মধ্যে সেরা হচ্ছে লাল শাক। লালশাকের রং ও স্বাদের জন্য অন্য সব শাক থেকে এই শাক আলাদা। লাল শাকে রয়েছে ভরপুর পুষ্টিগুণ। শারীরিক সুস্থতা বজায় রাখতে লালশাকের গুরুত্ব অপরিসীম। প্রতিদিন লাল শাক খাওয়া শুরু করলে শরীরের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি এর ঘাটতি দূর হয়। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। লাল শাকে থাকা ভিটামিন সি দৃষ্টি শক্তির উন্নতি ঘটায়। যারা চোখে কম দেখেন বা যাদের পরিবারে গ্লুকোমার মতো রোগের ইতিহাস রয়েছে, তারা লাল শাক খাওয়া শুরু করতে পারেন। লাল শাকে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন কে, যা হাড়ের উন্নতিতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। ফলে অস্টিওপোরোসিস এর মতো হাড়ের রোগ কম হয়। ব্রিটিশ হেল্থ জার্নাল এর সূত্র উল্লেখ করে এমনই তথ্য দিয়েছে 'সংবাদ পরিষেবা'।



লাল শাকে থাকা ফাইটোস্টেরল রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া নানাবিধ হার্টের রোগের প্রতিষেধক হিসেবেও কাজ করে। সপ্তাহে ২-৩ দিন যদি লাল শাক খাওয়া যায়, তাহলে হার্টের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। লাল শাকে প্রচুর পরিমাণে ফাইবারও রয়েছে, যা হজমে সহায়ক অ্যাসিডের ক্ষরণ বাড়িয়ে দেয়। ফলে বদ হজমের আশঙ্কা কমে। সেই সঙ্গে গ্যাস, অম্বলের প্রকোপও হ্রাস পায়। অনেকেই বলে, লাল শাককে পিষে রস বের করে তার সাথে এক চামচ লেবুর রস ও এক চামচ মধু মিশিয়ে নিয়মিত খেলে রক্তাল্পতা দূর হয়। তাই শারীরিক সুস্থতা বজায় রাখতে সপ্তাহে দু'এক দিন দুপুরে ভাত বা রুটির সঙ্গে লাল শাক খেতেই পারেন।


Post a Comment

0 Comments