চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

শতবর্ষে বর্ধমান ডিস্ট্রিক্ট রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন # উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান : কলকাতা সহ ২২ টি জেলায় নানা বিষয়ে পুরস্কার


 

বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান : কলকাতা সহ ২২ টি জেলায় নানা বিষয়ে পুরস্কার


ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : প্রতিবছরের মতো এবারও বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান প্রদান করা হবে। ইতিমধ্যে তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তরের পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। প্রতিযোগিতামূলক এই শারদ সম্মানের জন্য পুজো কমিটি গুলোকে আবেদন করতে হবে। তবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য কোনো রকম প্রবেশ মূল্য লাগবে না। কলকাতা এবং ২২ টি জেলার জন্য থাকছে নানা বিষয়ে পুরস্কার। "বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান ২০২০" নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে কিছু নিয়ম ও শর্তাবলী আরোপ করা হয়েছে। তবে পুজোর প্যান্ডেল সহ পুজো প্রাঙ্গণে কোভিড ১৯ সংক্রান্ত সকল স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে পালন করতে হবে। প্রতিযোগিতায় একমাত্র বারোয়ারী পুজো কমিটি গুলি আবেদন করতে পারবে। আবেদন পত্রের সঙ্গে রাস্তার খসড়া মানচিত্র ও পুজোর সংক্ষিপ্ত বিবরণ জুড়ে দিতে হবে। অনলাইনে www.wb.gov.in অথবা www.egiyebangla.gov.in ওয়েবসাইট থেকে ফর্ম ডাউনলোড করে নিতে হবে। অনলাইনে গতকাল থেকেই ফর্ম পাওয়া যাচ্ছে। ১৬ অক্টোবরের মধ্যে ফর্ম জমা দিতে হবে। সাইটে email ID উল্লেখ্য করা আছে। ফর্ম যথাযত ভাবে পূরণ করতে হবে, না হলে বাতিল বলে গণ্য হবে। আবেদনের সময় প্রয়োজনীয় নথিপত্র জমা করতে হবে। সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। বিচারকের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত। এব্যাপারে কোনো প্রকার পত্রালাপ গ্রাহ্য হবে না। এছাড়াও রয়েছে আরও কিছু নিয়ম-কানুন। ফর্ম ডাউনলোডের সময়ে ওয়েবসাইটে দেখে নেওয়া যাবে।




বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান ২০২০ কলকাতা ও ২২ টি জেলার জন্য রয়েছে আকর্ষণীয় অর্থ মূল্যের পুরস্কার। যে সমস্ত বিষয়ের উপর পুরস্কার প্রদান করা হবে তার মধ্যে কলকাতার ক্ষেত্রে সেরার সেরা, সেরা প্রতিমা, সেরা মন্ডপ, সেরা আলোকসজ্জা, সেরা পরিবেশবান্ধব, সেরা ভাবনা, সেরা আবিষ্কার, সেরা সমাজকল্যাণমূলক পুজো, সেরা কোভিড সচেতন পুজো, সেরা শিল্পী, সেরা ঢাকেশ্রী এবং সেরা বিশ্ববাংলা ব্র্যান্ডিং।



কলকাতার বাইরে ২২ টি জেলার ক্ষেত্রে সেরা পুজো, সেরা প্রতিমা, সেরা মন্ডপ এবং সেরা কোভিড সচেতন পুজো। বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান কলকাতার ক্ষেত্রে পুরস্কারের অর্থমূল্য জানা যায়নি। তবে জেলার ক্ষেত্রে সেরা পুজো নগদ ৫০ হাজার টাকার তিনটি পুরস্কার ও বিশ্ববাংলা স্মারক, সেরা মন্ডপ ৩০ হাজার টাকা নগদ মূল্যের তিনটি পুরস্কার ও বিশ্ববাংলা স্মারক, সেরা প্রতিমা নগদ ২০ হাজার টাকা র তিনটি পুরস্কার ও বিশ্ববাংলা স্মারক। এছাড়া সেরা কোভিড সচেতন পুজোর ক্ষেত্রে ২০ হাজার টাকার তিনটি পুরস্কার ও স্মারক প্রদান করা হবে বলে জানাগেছে। কলকাতার ক্ষেত্রে বিশ্ববাংলা শারদ সম্মানের জন্য পুজো পরিক্রমা হবে তৃতীয় ও চতুর্থী অর্থাৎ ১৯ ও ২০ অক্টোবর। আর জেলায় পুজো পরিক্রমা হবে চতুর্থী ও পঞ্চমী অর্থাৎ ২০ ও ২১ অক্টোবর। 

তবে করোনা আবহের মধ্যেই জোরকদমে চলছে থিমের বাস্তবায়নের কাজ। প্রতিযোগিতার ময়দানে কেউই এক ইঞ্চি জমিও ছাড়তে নারাজ। আর মাত্র ১০ দিন তারপরেই জানা যাবে বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান কোন কোন পুজো কমিটি পাচ্ছে।


Post a Comment

0 Comments