Scrooling

ঘূর্ণিঝড় রিমাল : পূর্ব বর্ধমানে ৪টি ব্লক ক্ষতিগ্রস্ত, মৃত ২ # চুরুলিয়ায় ৫ দিন ব্যাপী নজরুল স্মরণে বর্ণময় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মেলা # নন্দীগ্রামে বিজেপি সমর্থক খুনে রিপোর্ট চাইলো কমিশন # ১৮ তম লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল জানা যাবে ৪ জুন

৬ দফা দাবিতে পৌর স্বাস্থ্যকর্মীদের বিক্ষোভ আন্দোলন ও স্মারকলিপি প্রদান


 

৬ দফা দাবিতে পৌর স্বাস্থ্যকর্মীদের বিক্ষোভ আন্দোলন ও স্মারকলিপি প্রদান


ডেস্ক রিপোর্ট, সংবাদ প্রভাতী : পশ্চিমবঙ্গ পৌর স্বাস্থ্যকর্মী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নিকট পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি পৌরসভার পৌর স্বাস্থ্যকর্মীদের স্বাক্ষর সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদানের কর্মসূচী চলে। ৮ সেপ্টেম্বর বিভিন্ন পৌরসভার সামনে পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। বর্ধমান পৌরসভার অন্তর্গত পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা এদিন দুপূরে পৌরসভার সামনে অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হয়।।




পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা বলেন, বর্ধমান শহর সহ সারা পূর্ব বর্ধমান জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিনের পর দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই সংক্রমণ এর মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা কাজ করে চলেছে। কিন্তু রাজ্য সরকার জুন মাস পর্যন্ত করোনা উৎসাহ ভাতা দিলেও এরপরে উৎসাহ ভাতা বন্ধ করে দিয়েছে। বর্ধমান পৌরসভা জুন মাসের সরকার ঘোষিত উৎসাহ ভাতা দেয় নি। এমনকি জেলা শাসক জুলাই মাস থেকে করোনা মোকাবিলায় পৌর স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজ করে যাওয়ার নির্দেশ দিলেও এর বিনিময়ে কোন পারিশ্রমিক দেওয়া হচ্ছে না । এমতাবস্তায় পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা অনেকেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। করোনা আক্রান্তদের যে জীবন বীমা সরকার ঘোষণা করেছেন তা থেকেও তারা বঞ্চিত হচ্ছেন।

 


অন্যদিকে দুর্গাপুর কর্পোরেশনের পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা আজ কর্পোরেশনের সামনে অবরোধে সামিল হয়। তারা দাবি তোলে অবিলম্বে করোনা ভাতা পুনরায় জুলাই মাস থেকে চালু করতে হবে। পশ্চিমবঙ্গ পৌর স্বাস্থ্যকর্মী ইউনিয়নের রাজ্য সভাপতি সুচেতা কুন্ডু জানান, দুর্গাপুর সহ পশ্চিম বর্ধমান এ ব্যাপক করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। এমতাবস্থায় অনেক স্বাস্থ্যকর্মী করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। সরকার জীবনবীমা ঘোষণা করলেও তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন হচ্ছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। এতদসত্ত্বেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা অক্লান্ত ভাবে কাজ করে চলেছেন। অথচ পৌর স্বাস্থ্যকর্মীদের বিষয়ে সরকারি তরফে কোনো সদর্থক ভূমিকা নেই। তাই পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা বাধ্য হয়ে রাস্তা অবরোধ করে দাবি তোলে অবিলম্বে রাজ্য সরকারকে বেতন বৃদ্ধি করতে হবে। অবসরকালীন ভাতা দিতে হবে ।অবসরের বয়সসীমা ৬৫ বছর করতে হবে সরকার ঘোষিত জীবন বীমা করোনা আক্রান্তদের দিতে হবে এবং করোনা ভাতা পৌর স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য চালু রাখতে হবে। 

 এদিন পুলিশের হস্তক্ষেপে পৌর স্বাস্থ্যকর্মীরা অবরোধ তুলে দেয়।আজকের অবরোধ কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দেন পৌর স্বাস্থ্যকর্মী কেকা পাল ও গার্গী দাস প্রমুখ।