চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সদস্যকে চোখের জলে চিরবিদায়


 

প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সদস্যকে চোখের জলে চিরবিদায়


অভিরূপ আচার্য ও সেখ সামসুদ্দিন : গভীর বেদনার সঙ্গে চোখের জলে প্রিয় নেতা ও কর্মীকে চিরবিদায় জানালো কংগ্রেসীরা। প্রয়াত হয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সদস্য ও আইনজীবী শ্যামল সরকার। শোকস্তব্ধ মেমারি থেকে পূর্ব বর্ধমান জেলা কংগ্রেস। বৃহস্পতিবার রাত ন'টা নাগাদ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত‍্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫২ বছর। শ্যামলবাবু মেমারি পুরসভার বিদায়ী বোর্ডের কংগ্রেস কাউন্সিলর ছিলেন। বর্ধমান বার এ্যাসোসিয়েশনের সদস্য আইনজীবী শ্যামল সরকার ঘোর তৃণমূলের জমানায় কংগ্রেস প্রার্থী হিসেবে পৌর নির্বাচনে মেমারি শ্যামল সরকার মেমারিবাসীর কাছে সন্তু নামেই পরিচিত ছিলেন।



শুক্রবার তাঁর মরদেহ পূর্ব বর্ধমান জেলা কংগ্রেস ভবনের সামনে নিয়ে আসা হলে সবাই শোকে ভেঙে পড়েন। মালা দান ও স্মৃতি চারণা করা হয়। উপস্থিত ছিলেন জেলা কংগ্রেস এর কার্যকরী সভাপতি কাশীনাথ গাঙ্গুলি, এআইসিসি সদস্য অভিজিৎ ভট্টাচার্য, টাউন কংগ্রেস সভাপতি প্রবীর গাঙ্গুলি, সহ জেলা কংগ্রেস নেতা সুজিত চক্রবর্তী, সুদীপ মজুমদার, নাজির হোসেন, যুব কংগ্রেস সভাপতি গৌরব সমাদ্দার প্রমুখ। 

এদিন তার শেষযাত্রা পথে পাড়ার ক্লাব, এলাকার পার্টি অফিস জেলা কংগ্রেস কার্যালয়, বার এসোসিয়েশন হয়ে তার শেষ কৃত্য সম্পন্ন হয় ত্রিবেণী মহাশ্মশানে।




অসংখ্য মানুষের চোখের জল ভালোবাসা নিয়ে তার অন্তিম যাত্রা পথে ফুল মালা পরিয়ে রাস্তার উপর পুষ্প বৃষ্টি করে শেষ বিদায়ী অভিবাদন এক কথায় জনপ্রিয়তার চুড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছায়। অন্তিম যাত্রা পথে উপস্থিত ছিলেন পূর্ব বর্ধমান জেলার কংগ্রেস নেতৃত্ব তথা এআইসিসি সদস্য অভিজিত ভট্টাচার্য সহ যুব কংগ্রেসের সভাপতি গৌরব সমাদ্দার, যুব কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় খান, মন্তেশ্বর কংগ্রেসের নেতা বুলবুল আহমেদ, কালনা শহরের নেতা মনোজ সাহা, প্রদেশ সদস্য সদস‍্য মেমারির তুষার কান্তি পান, গলসির চঞ্চল সেখ, ভাতাও উত্তর বর্ধমানের হিলাল আহমেদ, রাজীব মল্লিক সহ অসংখ্য জেলা কংগ্রেস নেতা ও মেমারির সর্বদলের নেতৃত্ব এবং শ্যামল সরকারের অসংখ্য গুণমুগ্ধ সাধারণ মানুষ। বিশেষ করে যুব সম্প্রদায় ও মহিলাদের কান্না সবার চোখে জল এনেছে। কতটা জনপ্রিয়তা নিয়ে শ্যামল সরকার ছিলেন তাঁর প্রয়াণে মেমারির মানুষের সাথে উপস্থিত সকলেই স্বাক্ষী থাকল। তাঁর মৃত্যুতে পূর্ব বর্ধমান জেলা কংগ্রেস ও মেমারির মানুষের অপূরণীয় ক্ষতি হলো।


Post a Comment

0 Comments