চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়ি বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী # ফুটবলে আর্জেন্টিনার বিশ্বজয়, ফ্রান্স কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান মেসি # জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন) এর প্রথমভাগের পরীক্ষা ২৪ জানুয়ারি থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত # বর্ধমান জেলা রাইস মিলস অ্যাসোসিয়েশন এর শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায় #সরকারি কর্মচারীদের সুখের দিন শেষ, শ্রম কোড চালু হতে চলেছে সমগ্র ভারতে # পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার # #পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এর উদ্যোগে খালবিল ও চুনোমাছ উৎসবের উদ্বোধন ২৫ ডিসেম্বর

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস ও কিছু কথা

 

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস ও কিছু কথা


 🔸 রাধামাধব মণ্ডল


  ➡️ আজ ৯ই আগস্ট আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস। বিশ্বের প্রান্তিক এই জনগোষ্ঠীর জীবন, জীবিকা সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের সংস্কৃতির বৈচিত্র্যকে বাঁচিয়ে রাখতে, তাঁদের ভাষার চর্চাকে অব্যাহত রাখতে জাতিসংঘ কর্তৃক এই দিনটি গৃহীত হয়েছে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস হিসেবে। এই দিনটিকে পালনের মধ্য দিয়ে, এই প্রান্তিক জনজাতিকে সম্মান জানানো হয়েছে। এই দিনটিকে একটি স্মরণীয় দিন হিসেবে চিহ্নিত করতে, লড়াই করেন বাংলার বরেণ্য সমাজকর্মী তথা সাহিত্যিক মহাশ্বেতা দেবী।

তাঁর একাধিক লেখায় উঠে এসেছে অরণ্যচারীদের জীবন যাপনের সংস্কৃতি। তাঁর অরণ্যের অধিকার, বীরষা মুণ্ডাকে নিয়ে লেখা অন্য জীবনের কাহিনি।

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবসের মাধ্যমে, বিশ্বের আদিবাসী জনগোষ্ঠীর বিভিন্ন সমস্যার সমাধান, জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য জাতিসংঘ এবং আদিবাসী জাতি এক নতুন অংশীদারিত্ব শিরোনামে ১৯৯৩ সালকে আন্তর্জাতিক আদিবাসী বর্ষ ঘোষণা করা হয়। অরণ্যজীবী আদিবাসীদের অধিকার, মানবাধিকার, স্বাধীনতাসংক্রান্ত বিষয়সমূহ নিয়ে ১৯৮২ সালের ৯ই আগস্ট জাতিসংঘের আদিবাসী জনগোষ্ঠীবিষয়ক ওয়ার্কিং গ্রুপ-এর প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এই দিনটিকে স্মরণ করার জন্য জাতিসংঘ ১৯৯৪ সালের ২৩শে ডিসেম্বর দিনটিতে ৯ই আগস্টকে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

 পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের অবহেলিত, সুযোগবঞ্চিত আদিবাসী জাতিসমূহের সমস্যাগুলোর ওপর মনোযোগ আকর্ষণ করা এবং তাঁদের অধিকার রক্ষা করা, তাঁদের উন্নয়নের সুযোগ সৃষ্টি করার জন্যই এই দিনটি আজও পালিত হয়।

আজও এই অরণ্যচারীদের জন্য বহু গবেষক কাজ করে চলেছেন। গোটা দেশে, এই জনজাতির মানুষেরাই রয়েছেন আলোর বাইরে। দিন চিহ্নিত হয়েছে। সম্মান জানানো হয়েছে জাতিটিকে। কিন্তু আজও আলোকমালায় উজ্জ্বল হয়নি জাতিটির ভবিষ্যৎ। রাষ্ট্রের বঞ্চনায় এখনও এই দেশের আলো থেকে অনেক দূরে দাঁড়িয়ে রয়েছে আদিবাসীরা! ঝাড়খণ্ড রাজ্যে আদিবাসীদের জমি দখলে মদত দিচ্ছে সরকার। স্বাস্থ্য, চিকিৎসা ব্যবস্থার অন্ধকারে এখনও রয়েছে ঝাড়খণ্ড, উড়িষ্যার আদিবাসীরা। তবে আশার কথা শিক্ষার আলোকে, কর্মসংস্থানের লড়াইয়ে আসতে শুরু করেছে আমাদের দেশের আদিম জনজাতির মাটির দেবতারা।


Post a Comment

0 Comments