চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

করোনা যুদ্ধে সামনের সারির যোদ্ধাদের পাশাপাশি পর্দার আড়ালের কারিগরদেরও কুর্ণিশ

করোনা যুদ্ধে সামনের সারির যোদ্ধাদের সঙ্গে পর্দার আড়ালের কারিগরদেরও কুর্ণিশ 

 ✳ কিশোর মাকড়

 ➡ লকডাউন।  একটি শব্দে মানুষের ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধেই লকডাউন। করোনা যুদ্ধে লড়ছে ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী সহ অনেকেই। এরা সবাই ফ্রন্ট লাইনার। তার বাইরের যোদ্ধাদের কথা না বললে তাঁদের দায়বদ্ধতা ছোটো করা হয়। এরা সকলেই সিনেমার পদার্র আড়ালে শিল্পী। এরা মানে চাঁদু, সানি, তাপস, কৌশিক সহ আরো অনেকে। প্রত্যেকেই বর্ধমানের। হাসপাতালের এ্যাম্বুল্যান্স ড্রাইভার। সারা বছর যাদের পেট চলে পেসেন্ট পার্টির  পয়সায়। সেই পেসেন্ট পার্টি লকডাউন ঘোষণা হতেই পড়লো অকুল পাথারে। ফুটের হোটেল, দোকান সব বন্ধ। কালবিলম্ব  না করে স্হানীয় প্রাক্তন কাউন্সিলর তথা ইউনিয়নের নেতা সুশান্ত প্রামাণিক উদ্যোগ নিলেন কমিউনিটি কিচেন চালানোর। সাথে পেলেন এ্যাম্বুলেন্সের ড্রাইভারদের। যে কিচেন বন্ধ হলো ৩০ মে। প্রায় ৬০দিনের কাছাকাছি সকাল, সন্ধ্যা দুবেলা পাত পড়েছে প্রায় ১৪০০-১৫০০ অসহায় মানুষের। পেসেন্ট পার্টি কাটোয়ার সনাতন বাগ জানালেন ওনারা না থাকলে উপোষ করে মরতাম। সম্পূর্ণ  স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। 
  বর্ধমান পুরসভার পুরপতি পারিষদের প্রাক্তন সদস্য  সুশান্ত প্রামাণিক জানালেন লকডাউনের প্রথম দিনে দুপুরেই  দেখলাম পেসেন্ট পার্টি  শুকনো মুড়ি খাচ্ছেন মা, ভাই, সহ পাঁচজনে।  সেদিনই ছেলেদের সঙ্গে কথা বলে পরের দিন থেকেই শুরু হলো কমিউনিটি কিচেন।  এই কাজে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে  এগিয়ে আসেন ডাক্তার, এ্যাম্বুল্যান্স মালিক এবং সাধারণ মানুষ।  এই কাজের ভুয়সী প্রশংসা করেছেন এলাকার মানুষ। কাউন্সিলর আরো জানালেন হাসপাতালকে ঘিরে যে হোটেল, দোকান করে পেট চালাচ্ছেন যারা তাঁদের কথা ভেবে কমিউনিটি কিচেন তুলে নিলাম। আমার ইউনিয়ন সব সময় প্রস্তুত।  যে কোন বিপদে ডাক পড়লেই পাশে আছে আমার সৈনিকরা। কুর্ণিশ  করোনা যোদ্ধাদের  পাশাপাশি। পর্দার পিছনের সারির কারিগরদের।

Post a Comment

0 Comments