চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ -উপাচার্য নিয়োগকে কেন্দ্র করে রাজ্য ও রাজ্যপাল মতবিরোধ

ডেস্ক রিপোর্ট : বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে সহ-উপাচার্য নিয়োগকে কেন্দ্র করে রাজ্য ও রাজ্যপাল মতবিরোধ চরমে উঠেছে। রাজ্যপালের মনোনীত প্রার্থীকে খারিজ করে উচ্চ শিক্ষা দপ্তর নিজের মনোনীত অধ্যাপককে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য পদে নিয়োগ করলো। বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন সহ উপাচার্য হলেন কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের সিনিয়ার অধ্যাপক ড.আশিস কুমার পাণিগ্রাহী।  এদিকে সোমবারই রাজ্যপাল সহ-উপাচার্য পদে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণী বিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক গৌতম চন্দ্রের নাম প্রস্তাব করেন। আর সেই  নিয়েই  সংঘাত শুরু হয় রাজ্য ও রাজ্যপালের মধ্যে। ড. পানিগ্রাহীর নিয়োগের চিঠি বিকাশভবন থেকে সোমবারই বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড.নিমাই চন্দ্র সাহার কাছে পাঠিয়েও দেওয়া হয়। জানাগেছে, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্যের পদটি গত ২১ ফেব্রুয়ারি থেকেই ফাঁকা। ড.মহুয়া সরকার ওই পদ ছেড়ে চলে যাওয়ার পর এই পদে নতুন করে নিয়োগ হয়নি। এদিকে করোনা সংকটে লকডাউনের ফলে লেখাপড়ার ক্ষেত্রে ছাত্র-ছাত্রীদের যে অনেকটাই ক্ষতি হয়েছে সেটা বলার অপেক্ষা রাখেনা। তাই ক্ষতি সামলানোর কাজে গতি আনতে ওই পদে নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য উচ্চশিক্ষা দফতর। সেইমতো আচার্যের কাছে দুজনের নামের প্যানেল পাঠানো হয়। কিন্তু সেই প্যানেল খারিজ করে দেন রাজ্যপাল তথা বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীপ ধনখড়। তিনি নিজের ইচ্ছায় ওই পদে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়েরই প্রাণীবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড.গৌতম চন্দ্রের নাম প্রস্তাব করেন। যদিও এই নিয়োগ মানতে চায় নি রাজ্য উচ্চশিক্ষা দফতর। আর এটা নিয়েই মতবিরোধ। উল্লেখ্য, রাজ্যপালের সঙ্গে  বেশ কিছুদিন ধরেই নানা বিষয়ে রাজ্য সরকারের সংঘাত তুঙ্গে। তার মধ্যেই বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্যের নিয়োগ ঘিরে এই মতানৈক্য সেই সংঘাতে নতুন মাত্রা যোগ করল বলেই মনে করছে শিক্ষামহল।

Post a Comment

0 Comments