চৈতন্য মহাপ্রভু'র নামে নব নির্মিত তোরণ উদ্বোধন কাটোয়ার দাঁইহাটে

উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যের সেরা অদিশা দেবশর্মা, দশের মেধা তালিকায় ২৭২ জন # মাধ্যমিকে যুগ্ম প্রথম বর্ধমান সিএমএস হাই স্কুলের রৌনক মন্ডল এবং বাঁকুড়ার রাম হরিপুর রামকৃষ্ণ মিশনের অর্ণব ঘড়াই # আধার কার্ডের ফটোকপির অপব্যবহার রুখতে বিজ্ঞপ্তি জারি # ইউনেস্কো'র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজো # বাংলার চিকিৎসক উজ্জ্বল পোদ্দার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরার তালিকায়মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও তাক লাগালো কাটোয়ার অভীক পশ্চিমবঙ্গে কোভিড বিধিনিষেধ প্রত্যাহার #১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলন

বর্ধমানেই হচ্ছে কোবিড হাসপাতাল, জানালেন জেলাশাসক বিজয় ভারতী

ডেস্ক রিপোর্ট : পূর্ব বর্ধমান জেলায় প্রতিদিনই একের পর এক পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে স্পেশাল ট্রেন ঢুকছে। ভিন রাজ্য থেকে শ্রমিকরা আসার ফলে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে পূর্ব বর্ধমানেই করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য কোবিড হাসপাতাল তৈরীর সিদ্ধান্ত নিল জেলা প্রশাসন।
শুক্রবার জেলাশাসক বিজয় ভারতী এমনটাই জানালেন। তিনি বলেন, এতদিন বর্ধমানের ২ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে বামচাঁন্দাইপুরের যে বেসরকারি হাসপাতালকে (ক্যামরি) প্রি কোভিড হাসপাতাল বলে চিহ্নিত করা হয়েছিল। এখন থেকে আর প্রি কোভিড নয় ওই হাসপাতালে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা করা হবে। এটাই হবে পূর্ব বর্ধমান জেলায় কোবিড হাসপাতাল।
ভিন রাজ্য থেকে পরিযায়ী শ্রমিকরা জেলায় ফিরতেই হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। গত দু'দিনে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে।


এতদিন ধরে বামচাঁন্দাইপুরে ওই বেসরকারি হাসপাতালে হাইলি সাসপেক্ট রুগীদের চিকিৎসা করা হচ্ছিল। চিকিৎসাধীন রুগীদের  লালারস সংগ্রহ করে পরীক্ষায় পজিটিভ  মিললে তাঁদের দুর্গাপুরের বেসরকারি কোভিড হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হচ্ছিল। কিন্তু পরিযায়ী শ্রমিকরা বাড়ি ফিরতেই জেলায় এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭৪। তাহলে স্বাভাবিক ভাবেই রুগীদের চাপ বাড়ছে কোভিড হাসপাতালে। তাই চাপ কমাতেই তড়িঘড়ি প্রি কোভিড হাসপাতালকে কোভিড হাসপাতালে উন্নীত করা হচ্ছে।

জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান ইতিমধ্যেই ২৫ টি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে পাঁচ হাজার ৬০০ জন ফিরেছে পূর্ব বর্ধমান জেলায়। এর বাইরে বাস বা অন্যান্য ভাবেও বহু মানুষ ভিন রাজ্য থেকে ফিরেছে। সব মিলিয়ে  ২০ থেকে ২২ হাজার মানুষ ফিরে গেছে জেলায়। এখনো ২৫ টি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন আসবে।  জেলার ২১৫ টি পঞ্চায়েত এলাকার স্কুলে কোয়ারান্টাইন  সেন্টার চালু করা হচ্ছে।

Post a Comment

0 Comments